শুটকিপাট্টিতে আসামি ধরতে গিয়ে ৭ পুলিশ আহত : গুলিবিদ্ধ সন্ত্রাসী

কোতোয়ালির ৭ পুলিশ সদস্য আহত

চট্টগ্রাম মেইল : পুলিশের ওপর হামলাসহ ১৪ মামলার আসামি ওয়াসিমকে পরোয়ানামূলে গ্রেফতার করতে গেলে পুলিশ ও সন্ত্রাসীদের মধ্যে গুলিবিনিময়ের ঘটনা ঘটে।

এতে কোতোয়ালি থানার এএসআই ও কনস্টেবলসহ পুলিশের ৭ সদস্য আহত হয়। গুলিবিদ্ধ অবস্থায় ৮ মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানাভুক্ত সন্ত্রাসী মো. ওয়াসিম (৩৫)কে আটক করে পুলিশ হেফাজতে চমেক হাসপাতালে ভর্তি করার পর সন্ধ্যা ৭টার পর সে মারা যায়।

ন্ত্রাসী ওয়াসিম উদ্দিন

গুলিবিদ্ধ ১৪ মামলার আসামী ওয়াসিম উদ্দিন নগরীর কোতোয়ালী থানা পাথরঘাটা কলাবাগিচা এলাকায় মিয়া সওদাগরের কলোনির আব্দুস সবুরের ছেলে।

আজ ২২ এপ্রিল সোমবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে আছাদগঞ্জ শুটকী পল্লীতে গুলিবিনিময়ের ঘটনাটি ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে একটি এলজি, দুইটা কার্তুজসহ একটি দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করার কথা জানিয়েছে পুলিশ।

কোতোয়ালীর ওসি মোহাম্মদ মহসীন বলেন, সোমবার বিকেলে ৮ মামলার গ্রেফতারি পরোয়ানাভুক্ত আসামি ওয়াসিমকে গ্রেফতার করতে তার এলাকায় গেলে এলাকার লোকজন পুলিশকে ঘিরে ধরে। ইট পাটখেলও ছুঁড়ে। এক পর্যায়ে পুলিশের উপর এলোপাতারি গুলি চালাতে থাকলেও পুলিশও আত্মরক্ষার্থে গুলি ছুঁড়ে।

এতে তিনজন এএসআই ও চার কনস্টেবল আহত হয়। অন্যদিকে গুলি বিনিময়ের ঘটনা বন্ধ হলে ওয়াসিমের সহযোগীরা পালিয়ে গেলেও ওয়াসিমকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় গ্রেফতার করে কোতোয়ালি থানা পুলিশ। পুলিশ হেফাজতেই ওয়াসিমকে চমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সন্ধ্যা ৭টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

কোতোয়ালী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. কামরুজ্জামান গুলিবিনিময়ের ঘটনায় সাত পুলিশ সদস্য আহত হওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করেন। আহত পুলিশ সদস্যরা হল এএসআই সুকুমার (৩৫), এএসআই মাহবুব আলম (৩২), এএসআই আবুল হায়াত আরেফীন (৩৫), পুলিশ সদস্য জাকির (৪০), শাহজাহান (৩৫), সালাউদ্দিন (৪০), রণজিৎ। আহত সদস্যদের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বললেন তিনি।  

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ জহিরুল হক ভূঁইয়া জানান, বিকালে আসামী ধরতে গিয়ে কোতোয়ালীতে পুলিশের উপর সন্ত্রাসীরা হামলা চালায়। এতে সাতজন পুলিশ আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন। বাম পায়ে গুলিবিদ্ধ সন্ত্রাসী ওয়াসিমকে চমেক হাসপাতালের ২৬ নম্বর ওয়ার্ডে ভর্তি করা হলে সেখানে চিকিৎসাধিন অবস্থায় সে মারা যায়।

থানা সূত্রে জানা যায়, এর আগেও একই স্থানে গত বছর পুলিশকে কুপিয়েছিল এই ওয়াসিম। তখন তার কিরিচের আঘাতে কনেস্টেবল রাসেল গুরুতর আহত হয়েছিলেন। যার সাহসিকতার কারণে সেই সময়ে গ্রেপ্তার হয়েছিল ওয়াসিম। এ ঘটনার জন্য পিপিএম পুরস্কারও পেয়েছিলেন সেই কনস্টেবল। জামিনে বের হয়ে আবারও পুলিশের ওপর হামলা করলো সন্ত্রাসী ওয়াসিম উদ্দিন।

বিএম/রাজীব…