আরো শক্তিশালীরুপে ঘূর্ণিঝড় ফণী : মোংলা ও পায়রা বন্দরে বিপদ সংকেত

ঘূর্ণিঝড় ফণী

বিএম ডেস্ক : আগের চেয়ে আরো শক্তিশালী রুপ নিয়ে ধেঁয়ে আসছে ঘূর্ণীঝড় ফণী। ৪ নং সতর্ক সংকেত নামিয়ে মোংলা ও পায়রা বন্দরকে ৭ নং এবং চট্টগ্রাম বন্দরকে ৬ নং বিপদ সংকেত দেখিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

তবে কক্সবাজার সমুদ্র বন্দরে এখনো ৪ নং সতর্ক সংকেত বহাল রয়েছে বলে জানায় পতেঙ্গা আবহাওয়া অফিস।

আবহাওয়া অফিস সুত্রে জানা যায়, ঘূর্ণিঝড় ফণী সাগর থেকে উপকূলের দিকে এগিয়ে আসছে। বেশ গতিতে এর মধ্যে ফণী প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিয়েছে। যত সময় যাচ্ছে, ফণী ততই শক্তিশালী হয়ে উঠছে।

সকালে আবহাওয়ার বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে (ক্রমিক নম্বর-২৮) জানানো হয়েছে, পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও কাছাকাছি এলাকায় অবস্থানরত অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড় ‘ফণি’ সামান্য উত্তর ও উত্তর-পূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে একই এলাকায় অবস্থান করছে। এটি বৃহস্পতিবার সকাল ৯ টায় চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে এক হাজার ১ হাজার ৬৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে এক হাজার ২৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, মোংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ৯১৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ৯২৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থান করছিল।

এটি আরও ঘণীভূত হয়ে উত্তর বা উত্তর-পূর্ব দিকে অগ্রসর হতে পারে।

আবহাওয়া বিশেষজ্ঞদের আশঙ্কা, ফণীর আঘাত বেশ মারাত্মক হতে পারে। ফণীর প্রভাবে জলোচ্ছ্বাসও হতে পারে। ডুবে যেতে পারে নিম্নাঞ্চল।

বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, ফণী বাংলাদেশে আঘাত হানার আগে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ ও ওডিশা রাজ্যের উপকূলে কাল সন্ধ্যা আঘাত করতে পারে।ফলে কিছুটা দুর্বল অবস্থায় ৩ মে’ রাতে অথবা ৪ মমে ভোরের মধ্যে ফণী বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিম উপকূলীয় এলাকায় আঘাত হানতে পারে।

দুর্যোগ মোকাবেলায় বিআইডব্লিউটিএর সকল কর্মকর্তা কর্মচারীদের ছুটি বাতিল করেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

তাছাড়া উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত সব মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলাচল করতে এবং গভীর সাগরে বিচরণ না করতে পরামর্শ দিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

বিএম/রাজীব..

আরো খবর::  ঘূর্ণিঝড় ফণী’র কারণে চট্টগ্রামে ৬,মংলা ও পায়রায় ৭ নম্বর বিপদ সংকেত