ফুলকলির কাঁচামালে মরা মাছি ও পোকা : রসমালাই ও গাজরের হালুয়ায় ব্যাক ডেটের মেয়াদ

চট্টগ্রাম মেইল : চট্টগ্রামের মিস্টিজাত পণ্যের জনপ্রিয় ব্যান্ড ফুলকলির কারখানায় অভিযান চালিয়েছে র‌্যাপিড অ্যকশন ব্যাটেলিয়ন র‌্যাবের ভ্রাম্যমান আদালত। একইদিন হাটহাজারী উপজেলার ফুলকলির একটি বিক্রয়কেন্দ্রে অভিযান পরিচালনা করেছে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুহুল আমিন।

আজ রবিবার (১২ মে) দুপুরে নগরীর বাকলিয়া খানার রাহাত্তারপুল এলাকায় অবস্থিত ফুলকলির কারখানায় পরিচালিত ভ্রাম্যমান আদালতের নের্তৃত্ব দেন র‌্যাব সদর দফতরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আখতারুজ্জামান। এসময় নোংরা ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাদ্য তৈরি এবং সংরক্ষণের অভিযোগে ফুলকলি ব্রেড অ্যান্ড বিস্কুট ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডকে জরিমানা করে সতর্ক করে দেন ম্যাজিস্ট্রেট।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আখতারুজ্জামান সাংবাদিকদের জানান, অত্যন্ত নোংরা ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাদ্য পণ্য তৈরি হচ্ছিল ফুলকলির কারখানায়। অভিযানে পণ্যের কাঁচামালের ওপর মরা মাছি ও পোকা পড়ে থাকতে দেখে ফুলকলি কর্তৃপক্ষকে ৭ লাখ টাকা জরিমানা এবং ভবিষ্যতের জন্য তাদের সতর্ক করা হয়।

অভিযানে র‌্যাব-৭ চান্দগাঁও ক্যাম্পের কমান্ডার মেজর মেহেদী হাসান, ভোক্তা অধিকার ও বিএসটিআই এর প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

অন্যদিকে একই দিন বিকেলে চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলার ফুলকলির একটি বিক্রয়কেন্দ্রে অভিযান পরিচালনা করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো রুহুল আমিন। ভ্রাম্যমান আদালতের উপস্থিতি টের পেয়ে তড়িগড়ি করে বিক্রয়কর্মীদের দিয়ে রসমালাই ও গাজরের হালুয়ায় বেক ডেটের স্টিকার লাগানো হয়। তবে চোখ এড়াতে পারেনি বিচক্ষণ কর্মকর্তা রুহুল আমিনের কাছ থেকে।

এভাবে ক্রেতা ঠকানো এক ধরনের প্রতারণা উল্লেখ করে প্রতিষ্ঠানটিকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করে ভবিষ্যতে এ ধরনের কাজ আর না করার স্বর্তে মুছলেখা নেন নির্বাহী কর্মকর্তা।

অভিযান চিত্রে দেখা যায়, বিক্রয় কেন্দ্রটিতে রসমালাই শো রুমে আসার প্রায় ৩৬ ঘন্টা পরে (যদি কারখানার উৎপাদন সময় ধরা হয় তাহলে প্রায় দুই দিন বা ৪৮ ঘন্টা) পর বিক্রয়কর্মীদের দিয়ে ইচ্ছেমত মেয়াদোর্ত্তীন্নের স্টিকার লাগানো হচ্ছে ম্যানেজার সাহেবের সামনে। স্টিকার ছাড়াই ইতিমধ্যে বিক্রিও হয়েছে অনেক। তবে হঠাৎ করে ভ্রাম্যমাণ আদালত বাজার মনিটরিং আসায় বিষয়টি এড়িয়ে যেতে পারেনি প্রতিষ্ঠানটির কেউই।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রুহুল আমিন বলেন, পন্য বিক্রির ঠিক আগ মুহুর্তে স্টিকার যুক্ত করলেই সেটা সেই দিনের পণ্য হয়ে যায় এমনটাই ধারণা গ্রাহকদের থাকলেও আসলে আলগা স্টিকার লাগানো এক ধরনের প্রতারণা। সেই কাজটিই করেছে ফুলকলির বিক্রয়কেন্দ্রের কর্মীরা। ক্রেতা ঠকাতে ফুলকলির এমন প্রতারণার জন্য বিক্রয়কেন্দ্রের ম্যানেজারকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। ভবিষ্যতে এ ধরনের কাজ থেকে তারা বিরত থাকবে বলে মুচলেকা দিয়েছে।

তাছাড়া সকলের উদ্দ্যেশে তিনি বলেন, সবাই সচেতন হোন। আলগা স্টিকার ব্যবহার বন্ধ করুন। নতুবা আরো কঠোর শাস্তি প্রদান করা হবে।

এদিকে বিকেল সাড়ে ৫টায় পৃথক অভিযান পরিচালনা করে রুহুল আমিন। এসময় পেয়াজু তিন চার ঘন্টা মচমচে রাখার জন্য স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকারক অ্যলুমিনিয়াম (অ্যমোনিয়া) ব্যবহার করা অস্তিত্ব পেয়েছে ইফতার বিক্রেতার বিক্রিত ইফতারে। এছাড়া তিন চার দিনের পুরনো জিলাপির খামির দিয়ে বানানো জিলাপী বিক্রির সময় ধরা পড়ে ওই ব্যবসায়ি। প্রাথমিকভাবে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করে খাদ্যে ক্ষতিকর এমোনিয়া রং না মিশিয়ে আন্তরিক হবার আহবান জানিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রুহুল আমিন।

বিএম/রাজীব সেন..