চার চিকিৎসকের বিচারের দাবিতে শনিবার সমাবেশ
রাইফা হত্যা : বিএমডিসির প্রতিবেদন প্রত্যাখান করেছেন সিইউজে

চট্টগ্রাম মেইল : সাংবাদিক রুবেল খানের কন্যা রাফিদা খান রাইফাকে ভুল চিকিৎসায় ও চিকিৎসকের অবহেলায় খুন করার ঘটনায় বিএমডিসির দেওয়া প্রতিবেদন প্রত্যাখান করেছেন চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন-সিইউজে। অবিলম্বে অভিযুক্ত চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে চার্জশিট দেওয়ার দাবি করেছেন সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ।

শুক্রবার সকাল ১১টায় চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি তুলেন সাংবাদিক নেতৃবৃন্দরা।লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন রাইফার বাবা সাংবাদিক রুবেল খান। সংবাদ সম্মেলন থেকে আগামীকাল শনিবার সকাল ১১টায় চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সামনে সাংবাদিক-জনতার সমাবেশ কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন সিইউজের সভাপতি নাজিমুদ্দীন শ্যামল, বিএফইউজের সহ-সভাপতি রিয়াজ হায়দার চৌধুরী, সিইউজের সাধারণ সম্পাদক হাসান ফেরদৌস, সাংবাদিক হাউজিং সোসাইটির চেয়ারম্যান স্বপন মল্লিক, সিইউজের সহ-সভাপতি মোহাম্মদ আলী, বিএফইউজের যুগ্ম মহাসচিব মহসিন কাজী, সিইউজের যুগ্ম সম্পাদক সবুর শুভ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আহমেদ কুতুব, নির্বাহী সদস্য উত্তম সেনগুপ্ত, সিইউজের টিভি ইউনিট প্রধান অনিন্দ্য টিটো প্রমুখ।

সিইউজে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে রাইফার বাবা রুবেল খান অভিযোগ করেন, কাক যেমন কাকের মাংস খান না, তেমনি ডাক্তারদের বিরুদ্ধে বিএমডিসিও নিরপেক্ষ প্রতিবেদন দিতে পারেননি। বিএমডিসি ডাক্তারদের পক্ষ নিয়ে একপেশে প্রতিবেদন আদালতে জমা দিয়েছেন। যেখানে ভিকটিম রাইফার বাবা হিসেবে তারা আমার বক্তব্য নেওয়ার প্রয়োজনও মনে করেননি।

তিনি বলেন, রাইফার মতো আর যেন কোন মানুষ চিকিৎসকদের অবহেলায় মেডিকেল মার্ডারের মুখোমুখি না হন সেই আন্দোলনই করছি আমরা। মাদার অব হিউমেনেটি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বিশৃঙ্খল চিকিৎসা খাতকে ঢেলে সাজাবেন বলে প্রত্যাশা করছে চট্টগ্রামসহ সারা দেশের সাংবাদিক সমাজ।

গত বছরের ২৯ জুন রাতে চট্টগ্রামের বেসরকারি ম্যাক্স হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় খুন হন শিশু রাইফা। এ ঘটনায় ১৮ জুলাই ভুল চিকিৎসা ও অবহেলার অভিযোগ এনে ৪ চিকিৎসকের বিরুদ্ধে নগরীর চকবাজার থানায় মামলা দায়ের করেন রাইফার বাবা সাংবাদিক রুবেল খান।

এজাহার দায়েরের দুইদিন পর এজাহারটি মামলা হিসেবে গ্রহণ করা হয়। চকবাজার থানায় দায়ের করা মামলার আসামিরা হলেন- ম্যাক্স হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. বিধান রায় চৌধুরী, ডা. দেবাশীষ সেনগুপ্ত, ডা. শুভ্র দেব ও বেসরকারি ম্যাক্স হাসাপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. লিয়াকত আলী খানকে আসামি করা হয়।

বিএম/রাজীব সেন..