বাংলাদেশ, মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯ - ৬:৫৯ : পিএম


Tweet

প্রকাশ: ২০১৯-০৮-১৬ ১৭:৩৫:০৭ পড়তে সময় লাগবে 1 মিনিট

রামগড়ে ব্যবসায়ির বাড়ি ডাকাতি, জড়িত ৪ ডাকাত আটক

রামগড়ে ব্যবসায়ির বাড়ি ডাকাতি, জড়িত ৪ ডাকাত আটক

বিএম ডেস্ক : জেলার রামগড় পৌর ৪নং ওয়ার্ডের কমপাড়া এলাকার বাসিন্দা রামগড় বাজারের বিশিষ্ট চাল ব্যবসায়ী মো.ইউছুপের বাড়িতে দুর্ধষ ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে।

এসময় নগদ ৩ লক্ষ টাকা,৬ ভরি স্বর্ণালংকার ও ৩টি মোবাইল সেট লুট করে নিয়ে যায় ডাকাত দল।

আজ (১৬আগস্ট) শুক্রবার দিবাগত রাত সাড়ে ৩টার দিকে ডাকাতির ঘটনাটি ঘটে।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়,শুক্রবার দিবাগত রাত সাড়ে ৩টার সময় ব্যবসায়ী মো.ইউছুপের বাড়ির পিছনের একটি দরজা ভেঙ্গে ৭/৮ জনের একটি মুখোশপরা ডাকাত দল ঘরে প্রবেশ করে।

এসময় অস্ত্রের মূখে জিম্মি করে আলমিরার চাবি নিয়ে একটি রুমের ভিতর পরিবারের লোকজনকে আটকে রাখে ডাকাতদল।

পরে বাড়ির সকলের মোবাইল গুলো ছিনিয়ে নিয়ে আলমিরাতে থাকা নগদ ৩ লক্ষ টাকা ও ৬ ভরি স্বর্ণালংকার লুট করে পালিয়ে যায় ডাকাত দল।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ডাকাতির খবর পেয়ে রামগড় থানা পুলিশ তাৎক্ষণিক ভাবে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সার্কেল সৈয়দ মো.ফরহাদ, ও রামগড় থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) তারেক মোহাম্মদ আব্দুল হান্নানের নেতৃত্বে অভিযান শুরু করে।

সোনাইপুল ফরেনার্স চেক পোষ্ট এলাকায় একটি অট্টোরিকশা সিএনজি থেকে তিন ডাকাতকে আটক করতে সক্ষম হয় পুলিশ। আটককৃতদের কাছ থেকে লুট করা ২,৫৭,১৯৫ টাকা ও ৪ ভরি স্বর্ণালংকার উদ্ধার করে পুলিশ।

আটককৃতরা হচ্ছে, মো.নুরুল ইসলাম (৩৫), মো.নুরনবী প্রকাশ নাজিম উদ্দিন (৩২), মো.শাহ আলম টুকু (৩৫), এবং মো.নুরুল আমিনের ছেলে মো.নজরুল ইসলাম।

রামগড় থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তারেক মোহাম্মদ আব্দুল হান্নান বলেন, আটককৃত নাজিমের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় ৫টি ডাকাতি মামলা ও শাহ আলমের নামে একটি ডাকাতি মামলা, নুর ইসলামের নামে দুটি মামলা আছে এবং সে একটি মামলার সাজা প্রাপ্ত পলাতক আসামী বলেও জানান।

ডাকাতির ঘটনায় জড়িতদের ধরতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত আছে জানিয়ে ওসি বলেন, ডাকাতি ঘটনায় ব্যবসায়ী ইউছুপ নিজে বাদী হয়ে রামগড় থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

বিএম/আলমগীর/আরএসপি

শেয়ার করুন :

লাইভ টিভি•LIVE