ছলিমপুরে পুলিশ-ডাকাতের গোলাগুলি, গুলিবিদ্ধ ২জনসহ গ্রেফতার ৪

চট্টগ্রাম মেইল : সীতাকুণ্ডের ছলিমপুরে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে ৪টি আগ্নেয়াস্ত্রসহ একাধিক মামলার পলাতক আসামী রোকন উদ্দিন প্রকাশ পিস্তল রোকনের চার সহযোগীকে গ্রেফতার করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ। মঙ্গলবার ভোর ৪টার সময় উপজেলার ছলিমপুর ইউনিয়নের আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরীর মালিকানাধীন বাগান বাড়ীতে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার পুলিশ।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন উপজেলার ৬নং ওয়ার্ড দক্ষিণ ছলিমপুরের মীর আউলিয়া বাড়ির মৃত নুরুল আলম প্রকাশ মাঝির ছেলে মো. বাবলু প্রকাশ পিস্তল বাবলু প্রকাশ ইসহাক (৩৫), একই এলাকার কাজী পাড়ার মৃত আবুল কাশেমের ছেলে আব্দুল বারেক প্রকাশ পেয়ারু(৩৬), উত্তর ফকিরপাড়ার মো. রিফিকুল ইসলামের ছেলে ফাহিম ইসলাম (৩২) এবং উত্তর ছলিমপুর সিপাহীপাড়ার মৃত বদিউল আলমের ছেলে জাহাঙ্গীর আলম (৪০)।

জেলা ডিবি পুলিশ সূত্রে জানা যায়, অস্ত্র সস্ত্র নিয়ে সীতাকুণ্ড উপজেলায় ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছে এমন খবরে অভিযানে যায় জেলা গোয়েন্দা পুলিশ। এসময় পুলিশের অভিযানের আগে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে দুষ্কৃতিকারীরা পুলিশ’কে লক্ষ্য করে এলোপাতাড়ী গুলি ছোঁড়ে। পুলিশও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি ছোঁড়ে। এতে দুস্কৃতিকারীদের ছোঁড়া বিক্ষিপ্ত গুলিতে ডাকাতদলের সদস্য মো. বাবলু ও আব্দুল বারেক পায়ে গুলিবিদ্ধ হয়।

পরে ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ দুজনসহ তাদের অপর সহযোগী রফিকুল এবং জাহাঙ্গীরকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এছাড়া ঘটনাস্থল থেকে ৩টি দেশীয় তৈরী পাইপগান, ১টি বন্দুক, ২ রাউন্ড শর্টগানের কার্তুজ এবং ঘটনাস্থল হতে ১টি কার্তুজের খোসা উদ্ধার করার তথ্য জানিয়েছেন জেলা ডিবি পুলিশ।

পুলিশ জানায় গুলিবিদ্ধ দুজনকে চিকিৎসার জন্য চমেক হাসপাতাল প্রেরণ করা হয়েছে বাকিদের আটক করে সীতাকুণ্ড থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

চট্টগ্রাম জেলা বিশেষ শাখার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মহিউদ্দিন মাহমুদ সোহেল জানান, অভিযানের সময় সক্রিয় এ ডাকাত চক্রের অন্যতম সহযোগী রোকন উদ্দিন প্রকাশ পিস্তল রোকন আরো কয়েকজন সহযোগীসহ ঘটনাস্থল হতে সুকৌশলে পালিয়ে যায়।

তিনি বলেন, গ্রেফতারকৃতরা সংঘবদ্ধ অপরাধী চক্রের সদস্য। তারা তাদের পলাতক সহযোগীগণসহ পরষ্পর যোগসাজসে দীর্ঘদিন ধরে চট্টগ্রাম ও সীমান্তবর্তী জেলা এলাকায় চুরি, ডাকাতি, দস্যুতাসহ বিভিন্ন ধরনের অপরাধ কর্মকান্ডের সাথে জড়িত।

গ্রেফতারকৃত ও পলাতক আসামীদের বিরুদ্ধে চুরি, ডাকাতি, দস্যুতা ও অস্ত্রসহ একাধিক মামলা রয়েছে। এরমধ্যে পিস্তল বাবলুর বিরুদ্ধে সীতাকুন্ড থানাসহ বিভিন্ন থানায় ৮টি, ফাহিম ইসলামের বিরুদ্ধে ১০টি, জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে ২টি এবং পলাতক আসামী রোকনের বিরুদ্ধে ২২টি মামলা রয়েছে।

এ ঘটনায় ডাকাতির প্রস্তুতি ও অস্ত্র উদ্ধার সংক্রান্তে দুটি মামলা দায়ের করার পাশাপাশি পলাতক পিস্তল রোকন ও তাদের সহযোগীদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

বিএম/আরএসপি..