মিরসরাইতে পূর্ব শত্রুতার জেরে যুবক খুন

চট্টগ্রাম মেইল : চট্টগ্রামের মিরসরাই উপজেলার জোরারগঞ্জ এলাকায় প্রতিপক্ষের লোকজনের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে স্থানীয় এক যুবলীগ কর্মীর মৃত্যু হয়েছে।

এলাকায় আধিপত্য বিস্তারের জের ধরে দু সপ্তাহের চলমান দ্বন্ধে মো. আফজাল হোসেন (২৬)কে খুন করা হয়। আফজাল মিরসরাই উপজেলার জোরারগঞ্জ থানার হিঙ্গুলী ইউনিয়নের ইসলামপুর গ্রামের মিন্টু মিয়ার ছেলে এবং সে স্থানীয় যুবলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত বলে জানা গেছে।

নিহত যুবকের পরিবারের বরাতে পুলিশ জানিয়েছে পুর্ব শত্রুতার জের ধরে প্রতিপক্ষের লোকজন আফজালকে গত সোমবার বিকেলে ডেকে নিয়ে যায়। পরবর্তীতে তাকে পাহাড়ের ভেতরে নিয়ে বেধড়ক মারধর ও কুপিয়ে জখম করে রক্তাত্ত অবস্থায় ফেলে রেখে তারা পালিয়ে যায়।

নিহতের পিতা মিন্টু মিয়া সোমবার রাতে আফজাল হোসেনকে তুলে নিয়ে যাওয়ার ঘটনায় ৮ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো কয়েকজনকে আসামী করে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। রাতেই উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে পুলিশ দুজনকে আটক করে।

আটককৃতদের দেয়া তথ্যমতে সোমবার রাতেই গুরুতর আহত অবস্থায় আফজালকে উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আজ মঙ্গলবার (১০ সেপ্টেম্বর) ভোর ৪টার সময় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আফজালের মৃত্যু হয়।

জোরারগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.মফিজ উদ্দিন ভূঁইয়া জানান, গত দুসপ্তাহ ধরে ইসলামপুর গ্রামে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে বেশ কয়েকবার মারামারির ঘটনা ঘটে দুপক্ষের মধ্যে। চলমান শত্রুতার জের ধরে সোমবার আফজালকে ডেকে নিয়ে গিয়ে কুপিয়ে জখম করে ফেলে যায় প্রতিপক্ষের লোকজন। আহত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে আজ ভোরে তার মৃত্যু হয়।

আফজালের শরীরের বিভিন্ন স্থানে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে মারাত্মক জখমের চিহ্ন রয়েছে। আগের দিনে নিহতের পিতার দায়ের করা অপহরণ অভিযোগটি হত্যা মামলায় স্থানান্তর করে হত্যাকান্ডে জড়িতদের গ্রেফতারে পুলিশের চেষ্টা অব্যাহত আছে বললেন ওসি। তবে নিহত আফজালের বিরুদ্ধেও থানায় ডাকাতির প্রস্তুতি ও মারামারিসহ বেশ কয়েকটি মামলা রয়েছে বলেও ওসি মফিজ জানান।

বিএম/আরএস..