বিসিবির নিজস্ব অর্থায়নে বঙ্গবন্ধু বিপিএল,কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজি থাকবেনা

আসন্ন বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) টি-টোয়েন্টিতে থাকছে না কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজি। বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান পাপন জানিয়েছেন নিজস্ব অর্থায়নে করা হবে এবারের বিপিএল টি-টোয়েন্টি।

আসন্ন বিপিএলকে ঘিরে বিতর্কটা শুরু হয়েছে সাকিবের দল-বদল দিয়েই। ঢাকা ডাইনামাইটস ছেড়ে রংপুর রাইডার্সে যোগ দিয়েছিলেন তিনি। এরপর শুরু হয় বিতর্ক।

বিসিবি সাফ জানিয়ে দিয়েছিল ফ্র্যাঞ্চাইজিদের সঙ্গে চুক্তি শেষ বিসিবির। এসব ইস্যূতে কথা বলতে ফ্র্যাঞ্চাইজিদের সঙ্গে বৈঠক বসেছিল বিসিবি। অনেকেই এ বছরে বিপিএল আয়োজন করতে অনীহা প্রকাশ করেছিল।

তবে বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান আজ সাফ জানিয়ে দিয়েছেন আসন্ন বিপিএল থাকছে না কোন ফ্র্যাঞ্চাইজি। আগামী বছর বঙ্গবন্ধুর শততম জন্ম বার্ষিকী। তাকে উৎসর্গ করে এবারের বিপিএল বিসিবির অধীনেই হবে জানিয়েছেন নাজমুল হাসান।

“বিপিএলের প্রথম পর্ব শেষ হয়ে গিয়েছে। ফ্র্যাঞ্চাইজিদের সঙ্গে নতুন চুক্তি করার কথা। ওদেরকে চিঠি পাঠানো হয়েছিল এ ইস্যুতে কথা বলার জন্য। কয়েকটি ফ্র্যাঞ্চাইজির বেশকিছু দাবি রয়েছে। এখন তাঁদের যে দাবিগুলো সেগুলোর সাথে আমাদের নিয়মে যায় না। কয়েকটি ফ্র্যাঞ্চাইজির চেয়েছিল এ বছর যাতে আর কোন বিপিএল না, খেলবে না যে তা না। এক বছরে দুটো বিপিএল আয়োজনে তাঁদের উপর চাপ বেশি পড়ছে।”

“সবকিছু সিদ্ধান্ত নিয়ে ঠিক করেছি এবারের বিপিএল বিসিবি নিজেরাই চালাবে। আমরা কোন ফ্র্যাঞ্চাইজিতে যাচ্ছি না এবং এটার পেছনে সবচেয়ে বড় কারণ হচ্ছে আগামী বছর বঙ্গবন্ধুর শততম জন্ম বার্ষিকী। এবারের আসর আমরা উনাকে উৎসর্গ করে বঙ্গবন্ধু বিপিএল নামে চালাব। কোন ফ্র্যাঞ্চাইজিকে দিচ্ছি না। সবকিছু ঠিক থাকবে শুধু ম্যানেজমেন্ট পরিবর্তন হবে। ক্রিকেটারদের টাকা-পয়সা, সবকিছু আমরা দিব।”

বিসিবির সঙ্গে বৈঠকে বেশকিছু দাবি তুলে ধরে ফ্র্যাঞ্চাইজিরা। অনেকেই তো আইপিএলের মত বিপিএলেও বিসিবির কাছ থেকে লভ্যাংশ দাবি করেছিল। তাঁদের একহাত নিলেন বিসিবি প্রধান।

“আশা করি সবাই খুশি হবেন। যারা করতে চাচ্ছিল না তারা তো অবশ্যই খুশি হবে। যারা আর্থিক ক্ষতির কথা বলছিলেন তারা তো আরও বেশি খুশি হবেন কারণ তাঁদের পুরো টাকাটাই বেঁচে যাবে।”

বিএম/এমআর