বিশ্বের সব থেকে প্রভাবশালী বোর্ডের সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলী

স্পোর্টস ডেস্ক :২০১৭ সাল থেকেই গুঞ্জন উঠেছিল বোর্ড অব কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়ার (বিসিসিআই) পরবর্তী সভাপতি কে হবেন।সকল জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে সর্বসম্মতভাবে বিশ্বের সব থেকে প্রভাবশালী বোর্ডের সভাপতি পদে নির্বাচিত হতে চলেছেন ভারতের সাবেক অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলী।

ভারতীয় ক্রিকেটের কিংবদন্তী ক্রিকেটার সুনীল গাভাস্কার মনে করেন, বিসিসিআইয়ের দায়িত্বটা সৌরভ গাঙ্গুলীরই পাওয়া উচিৎ। নিজের উত্তরের স্বপক্ষে যথেষ্ট যুক্তিও রেখেছেন তিনি।

গাভাস্কার বলেন, ‘১৯৯৯-২০০০ সালে ভারতীয় ক্রিকেট যখন ম্যাচ ফিক্সিংয়ে কলঙ্ক বয়ে বেড়ায় সৌরভের নেতৃত্বেই সে সময় ঘুরে দাঁড়িয়েছিল ভারত।’

তিনি আরও বলেন, ‘ক্রিকেট বিশ্বে ভারতীয় বোর্ডের ভাবমূর্তি খারাপ হয়েছে। গত বছর জুলাইয়ে আদালত এই রায় দিয়ে দিয়েছে। তবে বোর্ডের অসহযোগিতার জন্যই এতোদিন অপেক্ষা করতে হয়েছে।’

জানা গেছে, রবিবার বোর্ড সভায় সভাপতির মনোনয়নের ইস্যু নাটকীয় মোড় নেয়। এতদিন শ্রীনিবাসনের ঘনিষ্ঠ ব্রিজেশ প্যাটেলকে এগিয়ে রাখা হচ্ছিল। কিন্তু বোর্ড সভায় গাঙ্গুলির নাম প্রস্তাব করেন সবাই। এরপর সভাপতি পদে মনোনয়ন জমা দেন ‘প্রিন্স অব কলকাতা’। তাতে ধারণা করা হচ্ছে, বিসিসিআইয়ের পরবর্তী সভাপতি হতে যাচ্ছেন গাঙ্গুলি।

সোমবার মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ সময়। গাঙ্গুলি বাদে এখন পর্যন্ত কোনও মনোনয়ন জমা পড়েনি। ফলে সভাপতি পদে নির্বাচনের সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। কোনও মনোনয়ন জমা না পড়লে গাঙ্গুলি সভাপতি নির্বাচিত হবেন বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায়।

সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে ২০১৭ সালে সভাপতি পদ থেকে অনুরাগ ঠাকুরকে বহিষ্কারের পর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন সিকে খান্না। ক্রিকেট ছাড়ার পর সংগঠক হিসেবে ব্যাপক খ্যাতি লাভ করেন গাঙ্গুলি। সিবিএর সভাপতি হিসেবে প্রশংসা কুড়িয়েছেন। বিভিন্ন সময়ে বিসিসিআইয়ের সভাপতি হতে আগ্রহ দেখিয়েছেন তিনি। এবার সেই স্বপ্ন পূরণ হতে চলছে ভারতের ক্রিকেটের সূর্য সন্তানের। ৪৭ বছর বয়সি গাঙ্গুলি ভারতের অধিনায়ক হওয়ার পর দলটির ক্রিকেট ব্র্যান্ড পাল্টে দেন। এবার বিসিসিআইয়ের দায়িত্ব নিয়ে নতুন চ্যালেঞ্জ নেওয়ার অপেক্ষায়।