অপহৃত কলেজছাত্র উদ্ধারের পর অপহরণের মূল নায়ক জয় গ্রেফতার

    চট্টগ্রাম মেইল : চট্টগ্রামে অপহরণের চারদিনের মাথায় উদ্ধার হওয়া কলেজছাত্র অপহরণের মূল পরিকল্পনাকারী জাহাঙ্গীর আলম ওরফে জয়কে (২৮) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পারিবারিক শত্রুতার জেরে কলেজ ছাত্র মো. সাদেক ছোবহান সাকিব (১৭)র খালাতো ভাই জয় এ অপহরণ ঘটনার মূল নায়ক।

    মঙ্গলবার সকালে নগরীর হকার মার্কেট এলাকা থেকে নগর গোয়েন্দা পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। এর আগে রবিবার থেকে সোমবার ভোর পর্যন্ত টানা অভিযান চালিয়ে অপহৃত কলেজ ছাত্র সাকিবকে উদ্ধার এবং অপহরণকারী জয়ের সহযোগী মো. হোসেনকে গ্রেফতার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ।

    নগর গোয়েন্দা পুলিশের সহকারী কমিশনার (পশ্চিম) মঈনুল ইসলাম কলেজ ছাত্র সাকিব অপহরণের মূল পরিকল্পনাকারী জাহাঙ্গীর আলম জয়কে গ্রেফতারের তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, মূলত পারিবারিক শত্রুতার জের ধরে খালাতো ভাই জয় এ অপহরণের পরিকল্পনা করে। এমনকি অপহরণের পর জয়কে চিনে ফেলায় ঘুমের ওষুধ খাইয়ে খুনের পরিকল্পনাও করেছিলো জয়।

    জানা যায়, সাকিবের মা নাসিমা বেগম নামে তার এক বোনকে ২৫ হাজার টাকা ধার দিয়েছিলো। ওই টাকা ফেরৎ চাইলে সাকিবের মার সাথে নাসিমা বেগমের ঝগড়া হয়। এরপর নাসিমা বেগমের প্ররোচনায় জয় সাকিবকে অপহরণ করে ৫০ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবী করে সাকিবের পরিবারের কাছে। অপহরণের খরচ বাবদ নাসিমা বেগম জয়কে অগ্রিম ৫ হাজার টাকা দেন।

    সে টাকা নিয়ে গত ১০ ডিসেম্বর বাসা থেকে কলেজে যাওয়ার পথে চন্দনাইশের ঠাকুরদিঘী এলাকায় সাকিবকে মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে যায় জয় এবং তার কয়েকজন সহযোগী। এরপর তাকে লোহাগাড়া থানার বটতলী এলাকায় এম কে শপিং সেন্টার নামে ভবনের তৃতীয় তলায় একটি আবাসিক হোটেলের ৩০৪ নম্বর কক্ষে আটকে রাখা হয়।

    সাকিবকে অপহরণের পর তার বাবা ফৌজুল কবীর নগর পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের শরণাপন্ন হলে নগর গোয়েন্দা পুলিশের একটি টিম অপহৃত সাকিবকে উদ্ধারে নামে। রবিবার থেকে সোমবার পর্যন্ত টানা ২৪ ঘন্টা অভিযান চালিয়ে লোহাগাড়া উপজেলার বটতলী বাজার এলাকার এম কে বোর্ডিং নামে একটি আবাসিক হোটেল থেকে সাকিবকে উদ্ধার এবং মো. হোসেন নামের এক অপহরণকারীকে গ্রেফতার করা হয়।

    গোয়েন্দা পুলিশ কর্তৃক উদ্ধার হওয়া সাকিব বিজিসি ট্রাস্ট ইউনিভার্সিটি কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র।

    বিএম/রাজীব…