সীতাকুণ্ডে আঃলীগের দুই পক্ষের পাল্টাপাল্টি বর্ধিত সভা, পৃথক প্রার্থী ঘোষণা

    কামরুল ইসলাম দুলু, সীতাকুন্ড প্রতিনিধি : সীতাকুণ্ডে পাল্টাপাল্টি বর্ধিত সভা করেছে উপজেলা আওয়ামীলীগ। দুইটি সভা থেকে দুইজনকে আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী ঘোষনা করা হয়েছে।

    বুধবার উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মো. ইসহাকের সভাপতিত্বে যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ.ম.ম দিলশাদ ও রেহান উদ্দিন রেহানের যৌথ পরিচালনায় কুমিরা আবাসিক উচ্চ বিদ্যালয় মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন স্থানীয় সংসদ সদস্য দিদারুল আলম।

    এ সভায় নেতৃবৃন্দ এস এম আল মামুনকে চেয়ারম্যান পদে এবং আলাউদ্দিন সাবেরিকে ভাইস চেয়ারম্যান পদে একক প্রার্থী হিসেবে সমর্থন জানান।

    অন্যদিকে একইদিনে সীতাকুণ্ড পৌরসভাস্থ জেলা পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল বাকের ভুঁইয়ার সভাপতিত্বে এবং সাংগঠনিক সম্পাদক সাঈদ মিয়ার পরিচালনায় পৃথক সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে আব্দুল্লাহ আল বাকের ভুঁইয়াকে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থী হিসেবে নাম ঘোষনা করা হয়।

    এমপি দিদারুল আলমের নের্তৃত্বে অনুষ্ঠিত বর্ধিত সভায় উপস্থিত ছিলেন,উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও মহানগর পিপি এডভোকেট ফখরুদ্দিন চৌধুরী, আইন বিষয়ক সম্পাদক ভবতোষ নাথ, দপ্তর সম্পাদক মহিউদ্দিন বাবলু, সহ-দপ্তর সম্পাদক আলাউদ্দিন সাবেরি, সদস্য মো. ইদ্রিস, সীতাকুণ্ড পৌর মেয়র বদিউল আলম, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানবৃন্দ এবং বিভিন্ন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি- সম্পাদকবৃন্দসহ উপজেলা আওয়ামী লীগের ৫৬ জন সদস্য উপস্থিত ছিলেন।

    অন্যদিকে সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল বাকের ভুঁইয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত অপর গ্রুপের বর্ধিত সভায় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মহিউদ্দিন আহমেদ, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক মনিরুল ইসলাম, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক মেজবা উদ্দিন চৌধুরী, সীতাকুণ্ড মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী সুরাইয়া বাকের, রতন মিত্র প্রমুখ। প্রবাসী সেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি সাংবাদিক মো: ইউসুফ খান, ৮ নং সোনাইছড়ি আ: লীগ সভাপতি নুর মোহাম্মদ, বাশবাড়িয়া আ:লীগ নেতা শাহাজাহান প্রমুখ। 

    পৌরসদরে সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বে পৃথক সভা অনুষ্ঠিত হওয়া প্রসঙ্গে জানতে চাইলে সংসদ সদস্য দিদারুল আলম বলেন, সভাপতির অনুমতি না নিয়ে তাঁর সভা ডাকার কোনো এখতিয়ার নেই। তিনি ৬/৭ জন সদস্য নিয়ে সভা করেছেন। অথচ বর্ধিত সভা ডাকতে দুই তৃতীয়াংশ সদস্যের উপস্থিতি প্রয়োজন। এ বিষয়ে উত্তর জেলা নেতৃবৃন্দকে জানানো হবে।

    এ প্রসঙ্গে স্থানীয় সংসদ সদস্য দিদারুল আলম বলেন, সভায় নেতৃবৃন্দ এস এম আল মামুনকে চেয়ারম্যান পদে এবং আলাউদ্দিন সাবেরিকে ভাইস চেয়ারম্যান পদে একক প্রার্থী হিসেবে সমর্থন জানান। তবে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে একাধিক প্রার্থী থাকায় একজনকে নির্বাচিত করার জন্য আমাকে দায়িত্ব দেয়া হয়। বৃহস্পতিবারের (আজ) মধ্যে একজনকে চূড়ান্ত করে তিন পদে তিন প্রার্থীর নাম লিখিতভাবে উত্তর জেলার নেতৃবৃন্দের কাছে জমা দেওয়া হবে।

    এদিকে পৌরসদরে সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বে পৃথক সভা অনুষ্ঠিত হওয়া প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি বলেন, সভাপতির অনুমতি না নিয়ে তাঁর সভা ডাকার কোনো এখতিয়ার নেই। তিনি ৬/৭ জন সদস্য নিয়ে সভা করেছেন। অথচ বর্ধিত সভা ডাকতে দুই তৃতীয়াংশ সদস্যের উপস্থিতি প্রয়োজন। এ বিষয়ে উত্তর জেলা নেতৃবৃন্দকে জানানো হবে।

    অন্যদিকে এমপির নের্তৃত্বে সভা প্রসঙ্গে বাকের ভুঁইয়া বলেন, উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থী মনোনয়ন নিয়ে সিদ্ধান্ত নেয়ার জন্য কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ থেকে আমার কাছে চিঠি এসেছে। তাই আমি কেন্দ্রের নির্দেশনা মোতাবেক উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থিতা চূড়ান্ত করার জন্য বর্ধিত সভার আয়োজন করি। 

    বিএম/কামরুল/রাজীব…