এস্কেভেটরে গুড়িয়ে দিল প্রভাবশালীদের দখলে থাকা অবৈধ স্থাপনা : উদ্ধার ৪১ কোটি টাকার সরকারি সম্পদ

    রুহুল আমিনে আত্মবিশ্বাস হাটহাজারী বাসীর

    রাজীব সেন প্রিন্স : হাটহাজারীতে কোটি কোটি টাকা মূল্যের সরকারি জমি তদারকির অভাবে এতদিন ছিল প্রভাবশালীদের দখলে। সংশ্লিষ্ট দপ্তরের গুটি কয়েক অসাধু কর্মকর্তাদের সাথে আতাত করে ভুমিদস্যুরা এসব সম্পত্তির করেছে নয় ছয়। সরকারি সম্পত্তিকে নিজস্ব সম্পত্তি ভেবে বানিয়েছে স্থায়ী-অস্থায়ী নানা স্থাপনা। এমনকি অবৈধভাবে নির্মিত দোকান মোটা অংকের টাকা নিয়ে মাসিক ভাড়া নির্ধারণ করে ব্যবসায়ীদের কাছে লাগিয়ত করারও অভিযোগ অহরহ।

    সরকারি জায়গার মালিকানা বনে গিয়ে ভুমিদস্যুরা রীতিমত মহোৎসবে নেমেছে ফুটপাত দখলেও। এতে ভোগান্তিতে পড়ে স্থানীয় এলাকাবাসী ও পথচারীরা। বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে তাদের হাটাচলার রাস্তা। ফলে দলাদলি করে সড়কের উপরে হাটতে গিয়ে প্রতিনিয়ত উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় সৃষ্টি হয় যানজট। ঘটে সড়ক দুর্ঘটনার, জন্ম নেয় মর্মান্তিক ঘটনার।

    দীর্ঘ এক যুগ ধরে এসব অনিয়ম ও দুর্ণীতি নিয়ে অনেকেই প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা করেছে। তবে প্রতিফল হয়নি, উচ্ছেদে উল্লেখযোগ্য কোন অভিযানও হয়নি। সড়ক ও জনপথ বিভাগ, রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ, পানি উন্নয়ন বোর্ড, বনবিভাগ, জেলা পরিষদের পক্ষ থেকে মাঝে মধ্যে দু একটি উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করলেও অভিযানে উদ্ধারকৃত ভুমি সংরক্ষণে স্থায়ী সমাধানের কোন উদ্দ্যেগ নেয়নি। ফলে অভিযানের কয়েকমাস পরেই ফিরে যাই পূর্বের অবস্থায়। এসব চিত্র দেখতে দেখতে প্রশাসনিক অভিযান থেকে বিশ্বাস হারিয়ে ফেলে স্থানীয়রা।

    তবে গত কয়েকমাসে হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুহুল আমিন ও উপজেলা ভুমি কর্মকর্তা সম্রাট খিসার নের্তৃত্বে পরিচালিত কয়েকটি উচ্ছেদ অভিযানে আত্মবিশ্বাস জন্মে সাধারণ মানুষের মনে। টাকার কাছে সব পোষ মানে এমন ভ্রান্ত ধারণা থেকে বেরিয়ে এসে সরকারি ভুমি উদ্ধারে সরকার যে কঠোর হয়েছে তা বিশ্বাস করতে শুরু করেছে হাটহাজারীবাসী।

    সাধারণ জনগণের পক্ষ থেকে যেখানেই অভিযোগ পাচ্ছে সেখানেই অভিযান পরিচালনার ব্যবস্থা করছে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুহুল আমিন। সকল অবৈধ স্থাপনা গুড়িয়ে দিয়ে কোটি কোটি টাকার সরকারি সম্পত্তি উদ্ধার করার মধ্য দিয়ে এলাকাবাসীর আস্থাভাজন হয়ে উঠছেন এ কর্মকর্তা।

    সরকারি ভুমি উদ্ধারে সর্বশেষ বৃহৎ অভিযানটি পরিচালিত হয় হাটহাজারী উপজেলার সরকার হাট বাজারে। রবিবার সকাল ৯টা থেকে শুরু হওয়া এ অভিযান চলে বিকেল ৫টা পর্যন্ত। ২টি এস্কেভেটর ও ৫০-৬০ জনের একটি শ্রমিক দল নিয়ে সকাল থেকেই এক এক করে গুড়িয়ে দিয়েছে অবৈধভাবে দখল করে নির্মাণ করা স্থায়ী ও অস্থায়ী দুই শতাধিক স্থাপনা।

    উদ্ধার করা হয় প্রভাবশালীদের দখলে থাকা সড়ক ও জনপথ বিভাগের প্রায় ৪ একর ভুমি। যার বর্তমান মৌজা দর প্রতি শতক ১০ লক্ষ ২০ হাজার টাকা ধরলেও উদ্ধার হওয়া সরকারি ভুমির আনুমানিক মূল্য দাড়ায় প্রায় ৪১ কোটি টাকা।

    এ সড়ক দিয়ে প্রতিদিন যাতায়াতকারীসহ এলাকাবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি ছিল সরকারি জায়গায় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করে যানজট মুক্ত করা। প্রশাসন বারবার উদ্যোগ নিলেও উচ্ছেদ অভিযান করতে পারেনি। অবশেষে সব বাধা পেরিয়ে হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আজ রবিবার এই উচ্ছেদ অভিযান চালায়।

    উপজেলা ভুমি কর্মকর্তা সম্রাট খিসাকে সাথে নিয়ে অভিযানের নের্তৃত্ব দেন রুহুল আমিন। এসময় পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও পল্লী বিদ্যুতের কর্মীরা এবং ইউপি চেয়ারম্যান, ইউপি সদস্যসহ স্থানীয় লোকজন সহায়তা করেন। অভিযানের পুরো সময় উপস্থিত ছিলেন সড়ক ও জনপথ বিভাগের কর্মকর্তাসহ রোডস এর স্টেট ও আইন বিষয়ক কর্মকর্তা এবং সংস্থাটির প্রকৌশলীরা।

    অভিযান শেষ করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুহুল আমিন বলেন, আমাদের কাছে স্থানীয় অনেকেই অভিযোগ করেছে প্রভাবশালী মহল সরকারি এসব জায়গা প্রতিযোগিতামূলক ভাবে দখল করে দোকান পাট ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান নির্মাণ করছে। সাধারণ পথচারীর চলাচলে বাধা দিচ্ছে।

    এসব অভিযোগ পেয়ে প্রথমে সরেজমিনে তা পরিদর্শণ করি এবং পরে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের মাধ্যমে মালামাল সরিয়ে নিতে দখলদারদের নোটিশ দেওয়া হয়। নির্ধারিত সময় শেষে আজ রবিবার এসব সরকারি ভুমি অবৈধ দখলদারদের হাত থেকে রক্ষা করতে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালিত হয়।

    তিনি বলেন, রবিবার সকাল ৯টা থেকে হাটহাজারী উপজেলার মির্জাপুর ইউনিয়নের সরকারহাট বাজারে উচ্ছেদ অভিযান শুরু করি। বিকেল ৫টা পর্যন্ত অভিযানে চট্টগ্রাম নাজিরহাট মহাসড়কের রাস্তার দুই পাশের শতাধিক স্থাপনা উচ্ছেদ করে সড়ক ও জনপথ বিভাগের প্রায় ৪ একর ভুমি উদ্ধার করেছি।

    এর আগে গত ১১ জানুয়ারি হাটহাজারীতে সওজের জায়গা দখল করে নির্মাণাধীন অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করেছে হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো.রুহল আমিন। নাজিরহাট পুরাতন বাসস্টেশনের ২০ গজ দূরে নতুন রাস্তার উত্তরে পরিচালিত অভিযানে সওজের প্রায় কোটি টাকার সম্পদ পুনরুদ্ধার করা হয়।

    বিএম/রাজীব সেন প্রিন্স…