চেয়ারম্যান বড় ভাইয়ের মতো : ম্রো তরুনী

    বিএম ডেস্ক : বান্দরবান জেলার আলীকদম উপজেলা পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান আবুল কালাম সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে একজন ম্রো তরুণীকে জড়িয়ে ধরেছিলেন। সে ছবিটি মুহুত্বেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায়।

    ছবির বিষয়ে সোমবার বিকালে সংবাদ সম্মেলন করে নিজের অবস্থান তুলে ধরেছেন ওই নারী। ওই নারী বাংলা বলতে না পারায় তরুণীর বড়ভাই মেনরুং ম্রো বাংলা ভাষায় তার বক্তব্য সাংবাদিকদের সামনে তুলে ধরেন।

    সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত সাংবাদিকদের লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, নির্বাচনে তৃতীয়বারের মতো আলীকদম উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর গত ২২ মার্চ পাহাড়ি ম্রো জনগোষ্ঠীরা আলী কদমের মেরিনচর এলাকায় চেয়ারম্যানকে গলায় ফুলের মালা পরিয়ে দেন। এসময় তিনি আমাকে আনন্দে জড়িয়ে ধরেছেন।

    নির্বাচনে তার জন্য অনেক কষ্ট করেছি। তাই নির্বাচিত হওয়ায় আমরা ভীষণ খুশি। তিনি আমার বড় ভাইয়ের মতো শ্রদ্ধাভাজন মানুষ। তিনি ছোট বোন হিসেবেই আমাকে জড়িয়ে ধরেছেন। এটি স্বাভাবিক একটি বিষয়। এখানে অন্যায় কিছু হয়নি।

    আমরা একই পরিবারের মতো। কিন্তু আমাদের এ ভাই বোনের সম্পর্কে অনেকে খুশি নন। যে কারণে আমাদের সম্পর্কে উল্টাপাল্টা করে ফেসবুক’সহ ইন্টারনেট এবং গণমাধ্যমে মিথ্যা অপপ্রচার চালানো হচ্ছে। আমরা বিষয়টির তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

    ইচ্ছার বিরুদ্ধে উপজেলা চেয়ারম্যান জড়িয়ে ধরেছিল কি না সংবাদিকের এমন প্রশ্নের জবাবে ওই নারী বলেন, ‘না, ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধরে নাই। আমার এবং আমার পরিবারসহ পাড়াবাসীর কারোরই চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ নেই। চেয়ারম্যানের প্রতি আমরা সবাই খুব খুশি।’

    তিনি আরও বলেন, এসব ছবি দিয়ে সংবাদ প্রকাশের পূর্বে আমার অথবা আমার পরিবারের বক্তব্য নেয়া উচিৎ ছিল। কিন্তু তা না করে একটি সুন্দর ভ্রাতৃত্ববোধকে পুরো পার্বত্য এলাকায় সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা হাঙ্গামা সৃষ্টির হীন উদ্দেশ্যে ছবিগুলো ভাইরাল করা হয়েছে।

    ধর্মান্ধ ও প্রতিক্রিয়াশীল গোষ্ঠী এ ধরনের সাম্প্রদায়িক উস্কানি সৃষ্টি করে তৃপ্তি পায়। তারা এলাকায় শান্তি ও সাম্প্রদায়িক সহাবস্থান চায় না। আমি তাদের এই মিথ্যা বক্তব্য প্রত্যাহারের আবেদন জানাচ্ছি।

    জড়িয়ে ধরার ঘটনায় উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কালামও দোষের কিছু দেখছেন না। তিনি বলেন, ‘পাড়াবাসীর সংবর্ধনায় সবাই আবেগাপ্লুত হয়ে পরস্পরকে জড়িয়ে ধরেছি। নির্বাচনে নারী-পুরুষ সবাই রাত-দিন পরিশ্রম করেছেন। ভোটের আগের রাতে ভোটকেন্দ্র পাহারা দিয়েছেন। তাই তাঁদের সবার জন্য আমার ভালোবাসা একটু বেশি। তাঁরাও জড়িয়ে ধরেছেন, আমিও ধরেছি। এতে দোষের কিছু হয়নি।’

    উল্লেখ্য, সম্প্রতি অনুষ্ঠিত হওয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিজয়ী প্রার্থী আবুল কালামকে গত ২৩ মার্চ সংবর্ধনা প্রদান করে আলীকদম উপজেলার মিরিংচর পাড়ার লোকজন। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তোলা কিছু ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল ও অনলাইনে সংবাদ প্রকাশ করায় নানা প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়।

    বিএম/রনী/রাজীব