শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে স্মৃতিসৌধে মানুষের ঢল

    বিএম ডেস্ক : মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে জাতি আজ গভীর শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করছে একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে শহীদ সন্তানদের। জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে আজ ভোর থেকেই মানুষের ঢল নেমেছে সাভারের জাতীয় স্মৃতিসৌধে।

    মঙ্গলবার (২৬ মার্চ) প্যারেড গ্রাউন্ডে ৩১ বার তোপধ্বনির মাধ্যমে দিবসটির সূচনা হয়। সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

    এরপর জাতীয় সংসদের পক্ষ থেকে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী শ্রদ্ধা জানান।

    পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আওয়ামী লীগ সভাপতি হিসেবে দলের শীর্ষ নেতাদের নিয়ে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান।

    ভোর থেকে বিভিন্ন ব্যানার ফেস্টুন নিয়ে নানা রাজনৈতিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনসহ সব শ্রেণি-পেশার মানুষ হাজির হয়েছেন সেখানে। বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীদের স্লোগানে মুখরিত হয়ে উঠেছে স্মৃতিসৌধ প্রাঙ্গণ।

    রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী স্মৃতিসৌধ এলাকা ত্যাগ করার পর সর্বসাধারণের জন্য খুলে দেওয়া হয় জাতীয় স্মৃতিসৌধের প্রধান ফটক।

    প্রধান ফটক খুলে দেয়ার পর বাধ ভাঙা জনতার ঢল নামে স্মৃতিসৌধে। সবার হাতে ফুল আর লাল-সবুজ পতাকা। কারও হাতে বিভিন্ন স্লোগান লেখা ব্যানার-ফেস্টুন। বিজয়ের উচ্ছ্বাসে উদ্ভাসিত সূর্যের মতো আলোকিত করে লাখো মানুষ জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের।

    সর্বস্তরের মানুষের সঙ্গে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন যুদ্ধদিনের বিদেশি বন্ধুরা। বি‌ভিন্ন রাজ‌নৈ‌তিক, পেশাজীবী, শ্র‌মিক সংগঠন, স্কুল, ক‌লেজ, বিশ্ব‌বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীসহ সর্বস্ত‌রের মানুষ শ্রদ্ধা জানায়।

    আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টি, জাসদ, সিপিবি, ওয়ার্কার্স পার্টি, গণফোরামসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ঢাকা বিশ্বিবিদ্যালয়, বাংলা একাডেমি, শিল্পকলা একাডেমি, ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটসহ রাজধানীর বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠন ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে দিবসটি উদযাপন করছে।

    বিএম/রনী/রাজীব