বাঁশখালিতে কেন্দ্র দখল ও জাল ভোটের অভিযোগ : আটক ৩

চট্টগ্রাম মেইল : বড় ধরণের কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ও বিশৃঙ্খলা ছাড়াই শেষ হয়েছে বাঁশখালি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ। চলছে গণনা। ভোট গ্রহণ চলাকালে উপজেলার একটি ভোট কেন্দ্র দখল করতে গিয়ে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে আটক হয়েছে রাশেদ আলী নামে এক ব্যাক্তি। তাছাড়া পৃথক অপর দুটি কেন্দ্রে জাল ভোট দিতে গিয়ে ম্যাজিস্ট্রেটের জেরার মুখে ভুয়া ভোটারের দায় স্বীকার করে নিয়েছে দুজন।

জানা যায়, রবিবার সকালে উপজেলার চাম্বল উচ্চ বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে প্রবাসী আবুল কালাম আজাদের হয়ে জাল ভোট দিতে আসে মো. সাগর নামের এক তরুণ। ভোটকেন্দ্রে ভোটার স্লিপ হাতে লাইনে দাঁড়ানো অবস্থায় তার গতিবিধি সন্দেহজনক মনে হলে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

পরবর্তীতে ভোটার তালিকায় নম্বর মিলিয়ে দেখা হলে ছবি ও তথ্যে গড়মিল ধরা পড়ে। ম্যাজিস্ট্রেটের জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে ভোটার না হয়েও এক প্রবাসীর হয়ে ভোট দিতে আসার কথা সে স্বীকার করে।

জাল ভোট দেওয়ার অপরাধে তাকে আটক করে বাঁশখালি থানা পুলিশের হাতে হস্তান্তর করা হয়েছে বলে জানান নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. তৌহিদুল ইসলাম।

পৃথক অপর এক কেন্দ্রেও জাল ভোট দেওয়ার অভিযোগে নুরুল কবির নামে এক ব্যাক্তিকে আটকের তথ্য নিশ্চিত করেছে সহকারী কমিশনার (ভূমি) সুজন চন্দ্র রায়। তিনি বলেন, দুপুর সোয়া ১২টার সময় উপজেলার পুইছড়ি কেন্দ্রে উড়োজাহাজ প্রার্থী মো. এমরানুল হকের পক্ষ হয়ে জাল ভোট দেয়ার চেষ্টা করে নুরুল কবির।

অভিযোগ পেয়ে তাৎক্ষনিক অভিযানে উড়জাহাজ মার্কার সিল মারা ১টি বইসহ তাকে হাতে নাতে আটক করা হয়। পরবর্তীতে সিল মারা ব্যলট বইটি বাতিল করা হয়েছে বলে জানান সুজন চন্দ্র।

তাছাড়া ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হওয়ার মাত্র এক ঘন্টা আগে উপজেলার পূর্ব চেঁচুরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেখে আটক করা হয় রাশেদ আলী নামে এক ব্যাক্তি। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) এ.কে এমরান ভূঁইয়া এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, আনারস প্রতীকের প্রার্থী খোরশেদ আলমের অনুসারি রাশেদ আলী স্থানীয়দের নিয়ে রবিবার বিকাল ৩ টার দিকে ভোট কেন্দ্রটি দখলে নেওয়ার চেষ্টা করে। এসময় পুলিশ কেন্দ্র দখল চেষ্টার অভিযোগে তাকে আটক করে বাঁশখালি থানায় পাঠিয়ে দেন।

বিএম/রাজীব সেন…