হবুর সাথে সমুদ্র দেখাটাই এখন স্মৃতি : বিয়ের স্বপ্ন সড়কেই শেষ জারিনের!

চট্টগ্রাম মেইল : কদিন পরেই আনুষ্ঠানিক দিনক্ষণ ঠিক করে হবু বর ইফতেখারের সাথে বিয়ের পিঁড়িতে বসার কথা ছিল চট্টগ্রামের চন্দনাইশ উপজেলার পশ্চিম এলাহীবাদ এলাকার আবুল কাশেমের মেয়ে জারিন জাহারার।

বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা নিয়ে ইতিমধ্যে দুজনের মধ্যে ছিলো উৎসব আমেজের রঙ। সংসার জীবন সাজাতে দুজনই স্বপ্ন বুনা শুরু করেছিল।

বিয়ের আনুষ্ঠানিতার আনন্দ দুই পরিবারের মাঝে ছড়িয়ে দিতে পারস্পরিক বোঝাপরা করতেই রবিবার সমুদ্র সৈকত ভ্রমনে বের হয় দুজন। সন্ধ্যায় জিসানের সঙ্গে পতেঙ্গা সৈকতে বেড়াতে যান জারিন। তখনও কি তারা জানতো এটাই হবে তাদের দুজনের জীবনের দুঃসহ স্মৃতি?

দুর্ঘটনা কেড়ে নিল বিয়ের পিঁড়িতে বসার সকল স্বপ্ন। পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকত দেখে ফেরার পথে বোট ক্লাবের সামনের সড়কে দুর্ঘটনার কবলে পড়ে ইফতেখার ও জারিন। নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে আইল্যান্ডে আছড়ে পড়ে তাদের বাহিত প্রাইভেট কারটি। গুরুতর আহত হয় ইফতেখারের চালক বন্ধুসহ তিনজন। হাসপাতালে নেয়ার পর পৃথিবীর মায়া ত্যাগ করে পরপারে পারি জমান ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটির কম্পিউটার সায়েন্স বিভাগের দ্বিতীয় সেমিস্টারের ছাত্রী জারিন। আহত হয়ে হবু স্ত্রীর দুঃসহ স্মৃতি বুকে ধারণ করে হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরেছে ইফতেখার। আহত অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছে প্রাইভেট কারের চালক।

নিহত জারিনের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, চান্দগাঁও আবাসিক এলাকার ৩ নম্বর ব্লকের ৯ নম্বর রোডের ২১৫ নম্বর বাড়িতে পরিবারের সাথে থেকে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত ছিলেন ২০ বছরের তরুণী জারিন জাহারা।

সম্প্রতি তার উপজেলা চন্দনাইশের ছেলে ইফতেখার আহমেদের সাথে তার বিয়ে ঠিক হয়। বিয়ের দিনক্ষণ ঠিক না হলেও তারা দুজনের মধ্যে আংটি বদল অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়। রবিবার তারা দুজন পরিবারের অনুমতি নিয়ে পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকতে বেড়াতে যান। সেখান থেকে ফেরার পথে দুর্ঘটনার খবর পান পরিবার।

জানতে পারেন আহত অবস্থায় হবু স্বামী স্ত্রীকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে এসেছে। খবর পেয়ে হাসপাতালে ছুটে এলেও মেয়ের সাথে আর কথা হলনা কারো সাথে। চলে গেলেন না ফেরার দেশে।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির এ এস আই আলাউদ্দিন তালুকদার স্বজনদের বরাতে জানান, রবিবার সন্ধ্যায় হবু বর ইফতেখারের সঙ্গে প্রাইভেট কারে করে পতেঙ্গা সৈকত এলাকায় ঘুরতে বের হয়েছিলেন জারিন জাহারা। কারটি চালাচ্ছিলেন ইফতেখারের বন্ধু।

ফেরার পথে রাত সোয়া ১১টার দিকে পতেঙ্গা বোট ক্লাবের সামনে তাদের বহনকারী প্রাইভেট কারটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে আইল্যান্ডে উঠে যায়। এতে তিনজনই আহত হন। গুরুতর আহত অবস্থায় জারিনকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে রাত ১২ টার সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

বিএম/রাজীব সেন প্রিন্স…