পূর্বাঞ্চল রেলওয়ের প্রকৌশলীকে মারধরের অভিযোগে ৬ কর্মচারী বরখাস্থ

?????????????????????????????????????????????????????????

চট্টগ্রাম মেইল : চট্টগ্রাম নগরীর পাহাড়তলীর রেলওয়ের বিভাগীয় প্রকৌশলী-১ এর কার্যালয়ে এক প্রকৌশলীকে মারধরের অভিযোগে চারজন ওয়েম্যানসহ ছয় জনকে সাময়িক বরখাস্থ করেছে রেলওয়ে পূর্বাঞ্চল কর্তৃপক্ষ।

গতকাল সোমবার রাতে রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের মহাব্যবস্থাপকের (জিএম) দফতরে জরুরি বৈঠকে বিভাগীয় প্রকৌশলী শেখ নাঈমুল হককে লাঞ্ছিত করার প্রমাণ পাওয়ায় তাৎক্ষনিক এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে কর্তৃপক্ষ। পাশাপাশি প্রকৌশলীকে লাঞ্চিত করার ঘটনায় দায়ী অন্যান্য কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধেও একই ব্যবস্থা নেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে সূত্র জানিয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, সোমবার পূর্বাঞ্চল রেলের কর্মস্থলে বেশ ক’জন ওয়েম্যান অনুপস্থিত ছিলেন। তাদেরকে ব্যক্তিগত এক অনুষ্ঠানের মিছিলে যেতে বাধ্য করেন রেলওয়ের শ্রমিক লীগ নেতা সিরাজুল ইসলাম।

বিকেলে ওয়েম্যানসহ বেশ কজন কর্মকর্তাকে কর্মস্থলে দেখতে না পেয়ে সংশ্লিষ্ট কর্মচারীদের বিরুদ্ধে শাস্থিমূলক ব্যবস্থা হিসেবে তাদের অনুপস্থিত দেখানোর আদেশ দেন বিভাগীয় প্রকৌশলী শেখ নাইমুল হক।

এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ওই শ্রমিক লীগ নেতার নেতৃত্বে ওয়েম্যানরা বিভাগীয় প্রকৌশলীর কার্যালয়ে গিয়ে বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়ে। একপর্যায়ে বিভাগীয় প্রকৌশলী শেখ নাইমুল হককে শারীরিকভাবে লাঞ্চিত করে।

এ খবর রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের সর্বস্থরের কর্মকর্তাদের মাঝে জানা জানি হলে তারা ক্ষুদ্ধ হয়ে উঠেন। সন্ধ্যায় রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের মহাব্যবস্থাপকের (জিএম) দফতরে জরুরি বৈঠকে বসেন কর্মকর্তারা।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের উপ-পরিচালক (জনসংযোগ) গৌতম কুমার কুন্ডু বলেন, বিভাগীয় প্রকৌশলীর কার্যালয়ে গিয়ে তার সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণ ও শারিরীকভাবে লাঞ্চিত করার অভিযোগ পেয়ে সোমবার রাতে রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের মহাব্যবস্থাপক সৈয়দ ফারুক আহমদ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের নিয়ে জরুরি বৈঠকে বসেন।

বৈঠকে ঘটনার প্রমাণ পাওয়ায় চারজন ওয়েম্যানসহ ছয় জনকে সাময়িক বরখাস্থ করেন। এ ঘটনায় দায়ী অন্যদের বিরুদ্ধেও একই ব্যবস্থা নেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। এদিকে বৈঠকের পর পূর্বাঞ্চলের কর্মকর্তারা প্রকৌশলীকে লাঞ্চিত করার প্রতিবাদে আগামী বুধবার আধাবেলা কর্মবিরতির ডাক দিলেও সে ব্যাপারে নিশ্চিত করে কিছু জানাননি
(জনসংযোগ) কর্মকর্তা গৌতম কুমার কুন্ডু।

জিএম সৈয়দ ফারুক আহমেদ বলেন, ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক ও নির্বিঘ্ন রাখতে সার্বক্ষনিক রেল লাইনে কাজ করতে হয় ওয়েম্যানদের। সোমবার এমন গুরুত্বপূর্ণ কাজ ফেলে তারা মিছিলে চলে যায়।

বিকেলে কর্মস্থলে অনুপস্থিত দেখে তাদের বিরুদ্ধে শাস্থিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের কথা জানায় বিভাগীয় প্রকৌশলী শেখ নাইমুল হক। এতে ক্ষুদ্ধ হয়ে তারা সংঘবদ্ধভাবে প্রকৌশলীকে লাঞ্চিত করে।

তিনি বলেন, প্রাথমিকভাবে এ ঘটনায় জড়িত ছয়জনকে সাময়িক বরখাস্থের নির্দেশ দিয়েছি। এছাড়া ওই ঘটনায় জড়িত বাকিদের চিহ্নিত করে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট শাখা প্রধানদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় একটি কমিটি গঠনের তথ্যও জানিয়েছেন জিএম সৈয়দ ফারুক আহমেদ।

বিএম/রাজন/রাজীব…