অষ্টম শ্রেণি পড়ুয়া নিজ মেয়েকে একবছর ধরে ধর্ষন করে পিতা

বিএমডেস্ক : অষ্টম শ্রেণিতে পড়ুয়া ১৪ বছরের মেয়েকে গত একবছর ধরে জোরপুর্বক ভয় দেখিয়ে ধষর্ণ করে আসছে ভ্যানচালক পিতা। বিষয়টি ধর্ষিতা ওই শিক্ষার্থীর মা জানলেও লোকলজ্জার ভয়ে তা কাউকে জানায়নি। তবে ঘটনার প্রকাশ পায় গত বৃহস্পতিবার বিকেলে।

নিজের মেয়ের উপর ভ্যানচালক পিতার নির্যাতনের মাত্রা বেপোরোয়া হওয়ায় বাধ্য হয়ে এলাকাবাসীর সহযোগীতা নিয়ে পাষন্ড পিতাকে আটক করে থানায় খবর দেন ধর্ষিতা ছাত্রীটির মা। পুলিশ এসে নরপিশাচকে থানায় নিয়ে গেলে দীর্ঘ একবছরের নির্যাতনের শিকার হওয়ার বিষয়ে মুখ খুলে ছাত্রীটি।

ঘটনাটি ঘটে নরসিংদী জেলার মনোহরদী উপজেলার একদুয়ারিয়া গ্রামে। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার রাতেই কিশোরীর মা বাদী হয়ে মনোহরদী থানায় মামলা দায়ের করেন।

ধর্ষণের শিকার ওই কিশোরীর মা জানান, গাজীপুরের কালিগঞ্জ উপজেলার দেওপাড়া গ্রামে বাবার বাড়িতে থাকাকালীন ১৭ বছর আগে ওই ভ্যানচালকের সঙ্গে তার বিয়ে হয়। তাদের সংসারে এখন এক ছেলে ও এক মেয়ে। বড় মেয়ে অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী এবং ছোট ছেলে ১০ বছর। সে ক্লাস ফোরে পড়ে।

গত প্রায় এক বছর আগে মেয়েকে বাড়িতে একা পেয়ে ভয় প্রদর্শন করে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে পিতা। মেয়ে প্রথমে এ ঘটনা কাউকে জানতে না দিলেও একই ঘটনা নিয়মিত ঘটলে পরে এতথ্য আমাকে জানায়।কিন্তু লোকলজ্জার ভয়ে আমি বিষয়টি কারো সাথে শেয়ার করার সাহস পায়নি। এ সুযোগে পাষণ্ড পিতা বেপরোয়া হয়ে উঠলে গ্রামবাসী তার এই বর্বরোচিত কর্মকাণ্ডের কথা জেনে যায় এবং তাদের এলাকা থেকে বের করে দেয়।

মাস তিনেক আগে ওই ভ্যানচালক পরিবার নিয়ে মনোহরদী উপজেলার একদুয়ারিয়া গ্রামের নিজ বাড়িতে বসবাস করতে থাকেন। সেখানকার একটি উচ্চ বিদ্যালয়ে মেয়েকে অষ্টম শ্রেণিতে ও প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ছেলেকে চতুর্থ শ্রেণিতে ভর্তি করান।

বৃহস্পতিবার বিকেলে মেয়েকে বাড়িতে একা পেয়ে ফের ধর্ষণ করেন ওই ভ্যানচালক। পরে সন্ধ্যায় মেয়েটির মা বাড়ি এলে তাকে এ কথা জানায় মেয়েটি। প্রতিবেশী কয়েকজনকে তিনি এ কথা জানালে তারা অন্যদের জানিয়ে সবাই মিলে ওই ভ্যানচালককে আটকে রেখে মনোহরদী থানায় খবর দেন। পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে তাকে আটক করে নিয়ে যায়। পরে কিশোরীর মা বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেন।

মেয়েকে ধর্ষনের অভিযোগে পিতাকে গ্রেফতার কথা স্বীকার করে মনোহরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মনিরুজ্জামান বলেন, তাকে আদালতে পাঠানো হবে। তাছাড়া ধর্ষিতা মেয়েটিকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য নরসিংদী সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে জানান ওসি।

বিএম/রাজীব….