সিটি কলেজের ভিপি পদ থেকে রাজনের পদত্যাগ : তফসিল ঘোষণার দাবি

তাইফুল খান : চট্টগ্রাম সরকারী সিটি কলেজের (বৈকালিক) শাখা ছাত্র সংসদের ভিপি পদ থেকে স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করেছেন রাজীব হাসান রাজন। তিনি বুধবার দুপুর আড়াইটার সময় কলেজ ছাত্র সংসদের সভাপতি ও কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর ঝর্ণা খানমের হাতে পদত্যাগ পত্রটি জমা দেন।

এ সময় তিনি অধ্যক্ষকে বলেন- নতুন নেতৃত্ব সৃষ্টির উদ্যোগের প্রথম ধাপ হিসেবে তিনি স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করলেন। এছাড়াও সংসদ কমিটি বাতিল করে দ্রুত নতুন তফসিল ঘোষণা করার জন্য অধ্যক্ষকে অনুরোধ করেন। কলেজ অধ্যক্ষ ঝর্ণা খানমও তার পদত্যাগ পত্র প্রাথমিকভাবে জমা নেন।

এসময় সরকারি সিটি কলেজে উপাধ্যাক্ষ প্রফেসর মঞ্জুর আহম্মদ, শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আহমেদ সোবাহান, শিক্ষক ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ওমর ফারুক এবং কলেজ ছাত্রলীগের অসংখ্য নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

পদত্যাগপত্র জমা দেওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করতে ভিপি রাজীব হাসান রাজনের সাথে যোগাযোগ করা হলে মুঠোফোনে তিনি জানান, গ্রুপিং এবং সিনিয়র নেতাদের সমন্ময় হীনতার কারনে দীর্ঘদিন ছাত্র সংসদ ও ছাত্রলীগের কমিটি থেকে বঞ্চিত ছিল সাধারণ ছাত্র-ছাত্রীরা। অনেকের ভ্রান্ত ধারণা ছিল বর্তমান ছাত্র সংসদ নেতাদের ইচ্ছা না থাকায় এ সংসদে নতুন নেতৃত্ব আসছে না, নতুন কমিটির তফসিল ঘোষণা হচ্ছে না।

আমি তাদের ধারণা ভুল প্রমাণিত করতে স্বেচ্ছায় ভিপি পদ থেকে পদত্যাগ করলাম। এবং এ সিদ্ধান্তের মাধ্যমে প্রমাণ করলাম আমিও নতুন নেতৃত্ব চাই।

তিনি আরো বলেন, আমি ছাত্র রাজনীতির শুরু থেকে সাধারণ ছাত্র ছাত্রীদের ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের সকল ন্যায্য দাবি এবং চাহিদার পক্ষে ছিলাম, ভবিষ্যতেও থাকব।

ভিপি পদের পাশাপাশি অন্যরাও পদত্যাগ করছেন কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ছাত্রসংসদের অন্যান্য প্রতিনিধিদের সাথে আমি যোগাযোগ করেছি। সাময়িক ব্যস্ততা’র কথা জানিয়ে তারা এ মুহুর্ত্বে উপস্থিত হতে না পারলেও এ কার্যক্রমের সাথে একাত্মতা ঘোষণা করে নতুন ছাত্রসংসদ কমিটি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে আগামীতে উদ্দ্যেগ গ্রহণ করার কথা জানান।

এদিকে পদত্যাগ পত্র জমা দেওয়ার সময় কলেজের শতাধিক শিক্ষার্থী ভিপি রাজীব হাসান রাজনের এ উদ্দ্যোগকে সম্মান জানাতে অধ্যক্ষ কার্যালয়ে ফুলের মালা নিয়ে আসে। তবে নতুন কমিটি বাস্তবায়ন না হওয়া পর্যন্ত ফুলের মালা গ্রহণে অনিচ্ছা প্রকাশ করে রাজন।

সাধারণ শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বললে তারা জানায়, সরকারী সিটি কলেজ ছাত্র সংসদের ভিপি রাজীব হাসান রাজন ভাই আমাদের যৌক্তিক দাবীকে সমর্থন জানিয়েছে। তাই আমরা সকল ছাত্র-ছাত্রীদের পক্ষ থেকে তাকে সাধুবাদ জানাই।

পাশাপাশি সিটি কলেজের দিবা ও বৈকালিক শাখার ছাত্রসংসদ ও ছাত্রলীগের দায়িত্ব প্রাপ্ত অন্যান্য প্রতিনিধিরাও ভিপি রাজন ভাইয়ের মতো স্বপ্রনোদিত হয়ে আমাদের এই দাবীকে সমর্থন জানাবেন এটাই কাম্য।

জানা যায়, ২০১৪ সালে তৎকালীন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ সভাপতি বদিউজ্জামান সোহাগ এবং সিদ্দিকী নাজমুল এক লিখিত প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে চট্টগ্রামের সকল কলেজ এর ছাত্রলীগ কমিটি বিলুপ্ত করেন।

মহানগর ছাত্রলীগকে বিলুপ্ত সকল ছাত্রলীগ কমিটি নতুন করে গঠন করতে নির্দেশ দেন। যার মধ্যে সিটি কলেজও উল্লেখ ছিল। এ নির্দেশনা আজ পর্যন্ত উপেক্ষিত রয়ে গেছে।

বিএম/তাইফুল খান/রাজীব সেন..