খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবিতে রাজধানীতে যুবদলের বিক্ষোভ

বিএম ডেস্ক : বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবিতে রাজধানীতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে কেন্দ্রীয় যুবদল।

শুক্রবার (৫ এপ্রিল) বেলা সাড়ে ১১টায় যুবদলের বিক্ষোভ মিছিলটি নয়া পল্টন বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে শুরু হয়ে নাইটিঙ্গেল মোড় ঘুরে আবারও বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে এসে শেষ হয়।

মিছিলে নেতৃত্ব দেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। এ সময় মিছিলে অংশ বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুস সালাম আজাদ, যুবদলের সভাপতি সাইফুল ইসলাম নীরব, সিনিয়র সহ-সভাপতি মোরতাজুল করিম বাদরু, ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি রফিকুল আলম মজনু, সাধারণ সম্পাদক গোলাম মাওলা শাহীনসহ আরও অনেকে।

বিক্ষোভ মিছিল শেষে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে বিএনপির রিজভী আহমেদ বলেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার শারিরীক অসুস্থতা ক্রমান্বয়ে চরম অবনতির দিকে যাচ্ছে। দেশনেত্রীকে চিকিৎসা দেয়ার নামে নানা টালবাহানা ও জনগণকে ধোঁকা দেয়ার চেষ্টা করছে সরকার। সরকার আমাদের দাবি উপেক্ষা করে বেগম জিয়ার পছন্দের হাসপাতালে চিকিৎসার সুযোগ না দিয়ে বরং বারবার বিএসএমএমইউতে চিকিৎসা দেয়ার নামে দেশনেত্রীকে এনে তিনি সুস্থ আছেন বলে মিথ্যার বেসাতি করে যাচ্ছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

তিনি বলেন, ‘‘প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে বলতে চাই-বেগম খালেদা জিয়াকে আর কষ্ট দেবেন না, তাকে অবিলম্বে নিঃশর্ত মুক্তি দিন, পছন্দের হাসপাতালে সুচিকিৎসার সুযোগ দিন। কারণ আপনার নির্দেশেই দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া কারাগারে। দেশের কারাগারগুলো এখন প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত লোহার খাঁচায় পরিণত হয়েছে। শেখ হাসিনা যাকে অপছন্দ করেন তাকেই সেই খাঁচায় যতদিন ইচ্ছা আটকে রাখেন। অভ্রান্ত কোন আইন-কানুনের দ্বারা এখন কারো সাজা হয় না, এখন হয় প্রতিহিংসার সাজা।

প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে রিজভী আরও বলেন, জনগণের চাপা ক্ষোভ আপনি আন্দাজ করতে পারছেন না বলেই বিএনপি চেয়ারপারসনকে মুক্তি না দিয়ে তাকে তিলে তিলে নিঃশেষ করার চেষ্টায় উঠেপড়ে লেগেছেন। কিন্তু আপনার লোহার খাঁচা ভেঙ্গে ফেলার জন্য জনগণ এখন প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে। দেশে ভয়াবহ দুঃশাসনসহ সড়কে এবং বিভিন্ন ভবনে আগুনে পুড়ে প্রতিদিনই মানুষের নির্মম মৃত্যু ঘটছে, চারিদিকে নিহতদের স্বজনদের আহাজারিতে আকাশ-বাতাস ভারী হয়ে উঠেছে। আপনি এখন চারিদিক দিয়েই ব্যর্থ। আপনার দুঃশাসনকে এখন প্রতিরোধ করার জন্য মানুষ পথে পথে প্রস্তুত হয়ে রয়েছে। পৃথিবীর অতীত ইতিহাস ভুলে যাবেন না, কোন স্বৈরাচারী শাসক এভাবে দেশের মানুষকে শাসন করে জনগণের ক্ষোভের আগুন থেকে রেহাই পায়নি। যুগে যুগে বিশ্বে স্বৈরাচারদের পরিণতির মতোই আপনাকেও সেই পরিণতি ভোগ করতে হবে।

তিনি বলেন, আমি আবারও অবিলম্বে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে তার পছন্দের হাসপাতালে সুচিকিৎসার সুযোগসহ নিঃশর্ত মুক্তির জোর দাবি জানাচ্ছি।

বিএম/রনী/রাজীব