চকরিয়ায় স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ

চকরিয়া প্রতিনিধি :

কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার ডুলাহাজারা ইউনিয়নে তৃতীয় শ্রেণীর এক স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় ডুলাহাজারা ২নং ওয়ার্ড চাবাগান এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটে।
অভিযোগে জানা যায়, অভিযুক্ত ব্যক্তি ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে ছাত্রীটিকে মাটিতে নিক্ষেপ করলে সে গুরুতর আহত হয়। পরবর্তীতে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করান। উপজেলা স্বাস্থ্য ক্লিনিক সুত্রে জানান, তার পায়ে আঘাত পেয়েছে এবং পা থেকে রক্তক্ষরণ হয়েছে।

কান্না বিজড়িত কন্ঠে ছাত্রীটি জানান, দুপুরে স্কুল বিরতির সময় অন্য দিনের মত মালুমঘাট বাজারের তরকারি ব্যবসায়ি পিতার জন্য বাড়ি থেকে ভাত নিয়ে যাচ্ছিল সে। বাজারের  কাছে চাবাগান বিল পর্যন্ত পৌঁছার পর ওই এলাকার আবুল হোছনের পুত্র জয়নাল আবেদিন (৪৪) প্রকাশ জইন্যা চোরা তার পথ গতিরোধ করে। এসময় মুখ চেপে ধরে তাকে নিকটস্থ নার্সারির নির্জন স্থানে নিয়ে গিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণের চেষ্টা করে।

তার শোর চিৎকারে ধর্ষণে ব্যর্থ হয় ধর্ষক জনি। এসময় ক্ষোভের বশে ছাত্রীটিকে মাটিতে সজোরে নিক্ষেপ করে পালিয়ে যায় জনি। এতে তার বাম পায়ে মারাত্মক ভাবে আহত হয়। পরে পথচারীরা ছাত্রীটিকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গিয়ে ভর্তি করে।

এদিকে স্থানীয় লোকজন জানায়, জইন্যা চোরার বিরুদ্ধে এলাকায় বিভিন্ন অপকর্মের অভিযোগ রয়েছে। এর আগেও সে এধরনের ঘটনা ঘটিয়েছে। ডুলাহাজারা ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান ও ২নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য শওকত আলী জানান, জইন্যা চোরা একজন পেশাদার চোর ও ছিনতাইকারী। এছাড়া তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন অসামাজিক কাজে লিপ্ত থাকার অভিযোগ রয়েছে।

চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বকতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী জানান, ডুলাহাজারায় তৃতীয় শ্রেণীর এক ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছার আগে ধর্ষক পালিয়ে যায়। তিনি বলেন, ছাত্রীটির পরিবারের পক্ষ থেকে মৌখিক অভিযোগ পেয়ে জয়নাল আবেদিন প্রকাশ জইন্যাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। পরবর্তীতে মামলা রুজু করে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানিয়েছেন ওসি।