রাউজানে অবৈধ ঔষুধ কারখানায় র‌্যাবের অভিযান : ৩৯ জনের সাজা

রাউজান প্রতিনিধি : রাউজানে অবৈধভাবে হারবাল ও কবিরাজী ঔষুধ তৈরির অভিযোগে ৩৯ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে শাস্থি প্রদান করে ভ্রাম্যমান আদালত। বন্ধ করে দেওয়া হয় তাদের পরিচালনাধীন অবৈধ ঔষুধ তৈরির কারখানাগুলো।

আজ রবিবার দক্ষিণ রাউজানের কাপ্তাই সড়ক সংলগ্ন ব্রাহ্মণহাট ও পাশ্ববর্তী এলাকায় সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত যৌথভাবে অভিযান পরিচালনা করে র‌্যাব-৭ ও উপজেলা প্রশাসন। অভিযানে প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আব্দুল হাকিমকে ৩ লক্ষ টাকা জরিমানা করা হয়। কারখানায় বিভিন্ন ধরনের কাজে লিপ্ত ৩৮জন কর্মচারির মধ্যে একজনকে ৫০ হাজার টাকা, অপর ব্যক্তিদের ৫ ও ৩ হাজার টাকা করে মোট ৫ লাখ ৩১ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। তাছাড়া তিনজনকে ৬ মাসের কারাদণ্ড প্রদান করেছে ভ্রাম্যমান আদালত।

ঔষুধ

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মো. শামীম হোসেন রেজা জানান, নামহীন কারখানায় ভরতীয় ঔষুধের স্টীকার লাগিয়ে প্রচারপত্র বিলির মাধ্যমে ভিপি পার্সেল যোগে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে পাঠানো হতো। এ কারখানায় তৈরি ঔষুদের কোন ধরনের বৈধতা নেই।

তিনি জানান, সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত এ অভিযানে জব্দ করা হয় ১০২টি মোবাইল সেট, এসব মোবাইল সেট ব্যবহার করে কল সেন্টারের মাধ্যমে ঔষুধের অর্ডার ও ডেলিভারি দেয়া হতো। বিকাশের অর্ধশতাধিক একাউন্টের প্রমাণও পায় অভিযানকারীরা। তাছাড়া অভিযানে জব্দ করা প্রায় ৫০ লাখ টাকা মূল্যের অবৈধ ঔষুধ পুড়িয়ে ধ্বংস করে প্রশাসন।

অভিযান পরিচালনার সময় উপস্থিত ছিলেন র‌্যাব ৭ এর সহকারী পুলিশ সুপার কাজী তারেক আজিজ, সহকারী পুলিশ সুপার মো. মাশকুর রহমান, চট্টগ্রাম জেলা ঔষুধ প্রশাসনের কর্মকর্তা কামরুল হাসান, সহকারী কমিশনার (ভূমি) এহসান মুরাদসহ র‌্যাবের ৩৫ সদস্য।