নিজেদের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিন: রিজভী

বিএম ডেস্ক : ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকারের উদ্দেশে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, ‘এক মাঘে শীত যায় না। পরিস্থিতি সব সময় একই রকম থাকে না। সময় বদলাতে তো সময় লাগে না। তাই নিজেদের ভবিষ্যতের কথা ভেবে খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিন।’

সোমবার (৮ এপ্রিল) সকালে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে রিজভী এসব কথা বলেন।

রিজভী বলেন, ‘আদালতের উপর প্রভাব খাটিয়ে দেশনেত্রীকে জামিন দেওয়া হচ্ছে না। নতুন নতুন গ্রেফতারি পরোয়ানা দেওয়া হচ্ছে। আসলে মামলা কিছু নয়, আসল উদ্দেশ্য দেশনেত্রীকে তিলেতিলে শেষ করা অথবা চিরজীবনের জন্য রাজনীতির ময়দান থেকে সরিয়ে দেওয়া এবং তাদের উদ্দেশ্য সফল না হওয়া পর্যন্ত বন্দি করে রাখা।’

রিজভী বলেন, ‘মানুষের আওয়াজ শুনুন। পায়ে পা মিলিয়ে, কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে প্রস্তুত হচ্ছে জনতা। জনতার আদালত তৈরি হচ্ছে। তাই নিজেদের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে, জনগণের আস্থার প্রতীক বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তিতে আর বাধা দেবেন না।’

তিনি বলেন, ‘সরকারদলীয় লোকদের মিডিয়া, মন্ত্রী ও তাদের নেতাদের কথাবার্তায় মনে হচ্ছে বেগম খালেদা জিয়ার প্যারোল নিয়ে তাদের ঘুম হারাম হয়ে গেছে। খালেদা জিয়ার প্যারোলে মুক্তি দেওয়ার বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামালের বক্তব্য ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফের বক্তব্য বিপরীতধর্মী। এতে বোঝা যায়, তারা খালেদা জিয়ার মুক্তি ও চিকিৎসা নিয়ে নিষ্ঠুর তামাশা করছেন।’

বিএনপির এই মুখপাত্র বলেন, ‘খালেদা জিয়া জামিনে মুক্তি পেতে সরকারের নির্দেশ সবচেয়ে বড় বাধা হিসেবে কাজ করছে। জামিন পাওয়া তাঁর নাগরিক অধিকার, সাংবিধানিক অধিকার। যে মিথ্যা মামলায় তাঁকে জোর করে সাজা দেওয়া হয়েছে, সেই মামলায় অন্য ব্যক্তিরা সবাই জামিনে রয়েছেন।’

খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার কোনো উন্নতি হয়নি দাবি করে রিজভী বলেন, পিজি হাসপাতালে তার চিকিৎসার যথাযথ ব্যবস্থা নেই। ডাক্তারদের দিয়ে গঠিত বোর্ড তার রোগ নির্ণয় ও চিকিৎসায় কোনো অগ্রগতি নেই। তারাও স্বীকার করছেন দেশনেত্রীর ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে আসছে না।

‘আমরা জেনেছি, তিনি একেবারেই হাঁটাচলা করতে পারছেন না। ডায়াবেটিস, জটিল অন্যান্য রোগ ও চোখের সমস্যাসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত বেগম খালেদা জিয়া এখন গুরুতর অসুস্থ। সরকার তার বড় ধরনের কোনো ক্ষতি করার জন্য সময়ক্ষেপণ করছে কিনা এ নিয়ে জনমণে প্রশ্ন গভীরতর হচ্ছে।’

সংবাদ সম্মেলনে দলটির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবুল খায়ের ভূইয়া, শাহিদা রফিক, সহ-দফতর সম্পাদক মুনির হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বিএম/রনী/রাজীব