যুবলীগ নেতা লোকমান খুনের প্রধান আসামি গুলি সাইফুল বন্ধুকযুদ্ধে নিহত : অস্ত্র উদ্ধার

চট্টগ্রাম মেইল : চট্টগ্রাম নগরীর বাকলিয়া থানা খালপাড় এলাকায় প্রেমের ঘটনাকে কেন্দ্র করে খুন হওয়া ওয়ার্ড যুবলীগ নেতা লোকমান হোসেনের প্রধান আসামি পুলিশের বন্ধুকযুদ্ধে নিহত হয়েছে।

পুলিশ জানায় সোমবার (৮ এপ্রিল) দিবাগত রাতে ফটিকছড়ি উপজেলার জাফতনগর এলাকা থেকে সাইফুলকে গ্রেফতার করার পর তাকে নিয়ে আজ মঙ্গলবার ভোরে অস্ত্র উদ্ধারে যায় পুলিশ।

নগরীর বাকলিয়া থানাধীন কল্পলোক আবাসিক এলাকায় ৫ নং ব্রিজ কবরস্থানের পাশে গেলে সন্ত্রাসীদের সাথে ‘বন্দুকযুদ্ধের’ ঘটনাটি ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে একটি এলজি ও দুই রাউন্ড গুলি উদ্ধার করার তথ্য জানিয়েছে পুলিশ।

নিহত মো. সাইফুল (২৮) প্রকাশ গুলি সাইফুল্লা বাকলিয়া থানাধীন সবুজবাগ আবাসিক এলাকার চিহ্নিত চাঁদাবাজ ও চকবাজার যুবলীগ নেতা নুর মোস্তাফা টিনুর অনুসারি। সে একই এলাকার রফিক আহমেদের ছেলে এবং গত ৬ এপ্রিল খালপাড় এলাকায় খুন হওয়া বাকমনিরাম ওয়ার্ড যুবলীগ নেতা লোকমান হোসেন জনি (২৫) হত্যা মামলার প্রধান আসামি।

বন্ধুকযুদ্ধে হত্যা মামলার আসামি সাইফুলের নিহত হওয়ার তথ্যটি নিশ্চিত করেছে বাকলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রনব চৌধুরী।

তিনি বলেন, লোকমান খুনের ঘটনায় তার মা রোকেয়া বেগম সাইফুলকে প্রধান আসামি করে ৮ জনের বিরুদ্ধে বাকলিয়া থানায় মামলা দায়ের করে। মামলার সুত্র ধরে বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে এ হত্যা মামলায় জড়িত কৃষ্ণ ধর (২৫) নামে এক আসামিকে ডিসি রোড এলাকা থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

তার স্বীকারোক্তি মতে এ হত্যা মামলায় আসামি সাইফুল ও জিয়া উদ্দিন বাবলুকে সোমবার গভীর রাতে ফটিকছড়ি এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। পরে সাইফুলকে নিয়ে মঙ্গলবার ভোরে কল্পলোক আবাসিকে অস্ত্র উদ্ধারে গেলে সেখানে সন্ত্রাসীদের সঙ্গে পুলিশের বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

একপর্যায়ে গুলিবিনিময় শেষ হলে সেখান থেকে অস্ত্র ও গুলি উদ্ধারের পাশাপাশি গুলিবিদ্ধ অবস্থায় সাইফুলকে উদ্ধার করা হয়। পরে তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক সাইফুলকে মৃত ঘোষণা করেন।

এর আগে শনিবার (৬ এপ্রিল) দিবাগত রাতে তুচ্ছ প্রেমের ঘটনাকে কেন্দ্র করে বাকলিয়া থানাধীন খালপাড় এলাকায় খুন হন লোকমান হোসেন জনি।