আজ-কালের মধ্যেই চুড়ান্ত হতে পারে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি!

শিগগির ঘোষিত হবে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ নেতৃত্ব!

বিএম স্পেশাল মেইল : আওয়ামী লীগের ভাতৃপ্রতিম সংগঠন ছাত্রলীগের পুর্ণাঙ্গ নেতৃত্ব ঘোষণা হতে পারে আজ-কালের মধ্যেই। সকল জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে নতুন ত্যাগী নেতাদের হাতেই অর্পণ হতে পারে রাজনীতির বলিষ্ঠ ভুমিকা পালনকারী এ ছাত্র সংগঠনের দায়িত্ব।

জানা গেছে, গঠনতন্ত্র অনুযায়ী ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটি ৩০১ সদস্য বিশিষ্ট। আর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কমিটি হয় ১০১ সদস্য। এসব কমিটিতে পদ পেতে তাই প্রতিদিনই চলছে দৌড়ঝাঁপ। বেড়েছে রাজনৈতিক নেতাদের সভা সমাবেশে পদ প্রত্যাশীদের উপস্থিতি। সক্রিয় থেকে মাতিয়ে রাখছে ক্যাম্পাস।

ছাত্রলীগ নেতারা বলছেন, তরুণ নেতৃত্বকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিচ্ছে আওয়ামী লীগ। তাই পদ বণ্টনের ক্ষেত্রে মাঠ পর্যায়ের ত্যাগী পরিশ্রমী নেতাদের গুরুত্ব দেবে শীর্ষ নেতৃত্ব। আজ অথবা আগামী কালের মধ্যেই পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা হতে পারে। এতে এমন কেউ এবার পদ পদবী পাবে না যারা দলের বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে পারে। তাছাড়া পুর্ণাঙ্গ কমিটিতে বিগত দিনের মত অযাচিত কারো অনুপ্রবেশ যেনো না ঘটে, সে বিষয়ে ছাত্রলীগ শীর্ষ নেতারা সজাগ রয়েছেন বলে জানান নেতারা।

জানা যায়, গত বছরের ১১-১২ মে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ছাত্রলীগের জাতীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলনে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটি ভেঙ্গে দিয়ে নতুন কমিটি ঘোষণা করার তাগিদ দেন আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারা।

তবে রাজনৈতিক অস্থিরতা ও নানান ইস্যুতে আড়াই মাস সময় ক্ষেপন করে ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির শুধুমাত্র সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নাম ঘোষণা করা হয়। ২০১৮ সালের ৩১শে জুলাই ঘোষিত নতুন কমিটিতে কেন্দ্রীয় সভাপতির দায়িত্ব পান রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন, সাধারণ সম্পাদক হন গোলাম রাব্বানী। পাশাপাশি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা মহানগরের উত্তর ও দক্ষিনের সভাপতি এবং সাধারন সম্পাদকের নাম ঘোষণা ছাড়া আর কোন পদ পদবীর দায়িত্ব এখন পর্যন্ত কাউকে অর্পণ করা হয়নি।

এমনকি সভাপতি/সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব গ্রহণের দীর্ঘ সময় অতিবাহিত হলেও কেন্দ্রীয় কমিটিতেও গঠন হয়নি পূর্ণাঙ্গ কমিটি।

অনেক নেতা কর্মী আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতাদের শরণাপন্ন হলে তাদের দলে হাই কমান্ডে এ বিষয়ে বিষদ আলোচনা শেষে দ্রুত ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করতে তাগিদ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যার নির্দেশনার পর পদ প্রত্যাশীদের জীবন বৃত্তান্ত সংগ্রহ করেন ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক হন গোলাম রাব্বানী।

উল্লেখ্য এর আগে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৩০১ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কেন্দ্রীয় কমিটি গঠন করা হয়েছিল গত ২০১৬ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি। এ কমিটির সভাপতির দায়িত্বে ছিলেন সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন এস এম জাকির হোসাইন।

বিএম/রাজীব…