ওবায়দুল কাদের ভালো আছেন,চলতি মাসেই দেশে ফিরবেন

বিএম ডেস্ক : সিঙ্গাপুরে চিকিৎসাধীন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের শারীরিক অবস্থার উন্নতি হয়েছে। বর্তমানে তিনি দেশে ফেরার মতো অবস্থা রয়েছেন।

আজ (১৬ এপ্রিল) তার চিকিৎসার ফলোআপ শেষে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে কবে দেশে ফিরছেন তিনি।

এদিকে, দেশে চলমান পরিস্থিতি সম্পর্কে খোঁজ-খবর রাখছেন কাদের। দেশের সংবাদ মাধ্যম গুলোতে প্রতিদিনই চোখ রাখেন তিনি।

সোমবার কাদেরের সঙ্গে সাক্ষাত শেষে দেশে ফিরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) কার্ডিওলোজি বিভাগের অধ্যাপক ডা. মো. হারিসুল হক এসব তথ্য জানান।

ডা. মো. হারিসুল হক জানান, বর্তমানে কাদেরের হৃদযন্ত্রের কার্যকারিতা ভালো আছে।নিয়ন্ত্রণে রয়েছে উচ্চ রক্তচাপ ও ডায়াবেটিস। নিয়মিত হাঁটাচলাও করছেন তিনি। ১৬ এপ্রিল তার চিকিৎসার বিষয়ে একটি ফলোআপ শেষে সিদ্ধান্ত হবে কবে দেশে ফিরবেন তিন।

দেশে ফিরে বঙ্গবন্ধু মেডিক্যালের এ চিকিৎসক আরও জানান, ওবায়দুল কাদের নববর্ষ উপলক্ষে দেশবাসীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। এছাড়াও দেশের সাম্প্রতিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে খোঁজ-খবর রাখছেন আওয়ামী লীগ সম্পাদক। ফেনীতে সম্প্রতি ঘটে যাওয়া নুসরাত হত্যাকাণ্ডের বিষয়েও মর্মাহত তিনি।

এ বিষয়ে ওয়য়ামী লীগের এ নেতা বলেছেন, অপরাধীদের আশ্রয়-প্রশ্রয় দেবে না তার দল। বর্তমান সরকার অপরাধীদের বিষয়ে কোনও ছাড় দেবে না।

মন্ত্রণালয়ের কাজের ব্যাপারেও তার নজর রয়েছে জানিয়ে তিনি আরো বলেন, আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বর্তমানে সিঙ্গুপরে অবস্থান করলেও দেশের মাটিতেই তার মন পড়ে আছে। কোন সড়কের উন্নয়ন কাজ কবে শেষ করতে হবে, কোন কোন ব্রিজের কাজ কবে শেষ হবে এসবই তার মুখস্ত। তিনি অসম্ভব মেধাবী ও শক্তিশালী মনোভাবের অধিকারী। একইসঙ্গে তিনি বিরাট মন ও হৃদয়েরও অধিকারী। সিঙ্গাপুরে যেনো সব মানুষই তার আপনজন। আওয়ামী লীগের প্রত্যেক নেতা-কর্মীই তার বড় প্রিয় আপন মানুষ।

উল্লেখ, গত ৩ মার্চ ওবায়দুল কাদের অসুস্থ হয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার হার্টে তিনটি ব্লক ধরা পড়ে। পরে তার উন্নত চিকিৎসার পরদিন ৪ মার্চ তাকে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে সিঙ্গাপুরের নেওয়া হয়। সেখানে মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে দীর্ঘ এক মাস চিকিৎসা শেষে ৫ এপ্রিল তাকে ছাড়পত্র দেয় হাসপাতাল।

বিএম/রনী/রাজীব