কার চালক শিমুলের খুনিদের ফাঁসির দাবীতে সীতাকুণ্ড প্রেসক্লাবে সংবাদ সন্মেলন

কার চালক শিমুলের মায়ের সংবাদ সম্মেলন

সীতাকুণ্ড প্রতিনিধি : রোগীকে রক্ত দেওয়ার কথা বলে কার ভাড়া করে কারের চালক শিমুলকে হত্যা করেছিল যাত্রীবেশী ৪ খুনী। গত ১২ এপ্রিল শুক্রবার রাতে চালক মোঃ নুরুল গণি শিমুলকে হত্যা করা হয়। হত্যাকারীদের উপযুক্ত শাস্তির দাবীতে সংবাদ সন্মেলন করেছে সীতাকুণ্ড মাইক্রো-কার চালক সমবায় সমিতি।

আজ মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) সকালে সীতাকুণ্ড প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত সংবাদ সন্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আজাদ।

সংবাদ সন্মেলনে জানানো হয়, ড্রাইভার শিমুলকে হত্যাকারীদের মধ্যে আটক ইমন ও নিশাত ইয়াবা ব্যাবসায়ী। কিছুদিন আগেও ইয়াবাসহ ধরা পড়ে তারা জেল থেকে বের হয়ে এসে কার চালক নুরুল গণি শিমুলকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে। তাছাড়া আটককৃত অন্য আসামী ও হত্যার সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে থানায় ডাকাতিসহ একাধিক মামলা রয়েছে।

তারা বার বার বিভিন্ন অপকর্ম করেও জেল থেকে বেরিয়ে এসে আবারও অপকর্মে লিপ্ত হয়। আমাদের ধারনাে এসব অপরাধীদের উপযুক্ত শাস্তি না হওয়ায় তারা বার বার এসব অপকর্ম করার সাহস পাচ্ছে। আমরা প্রশাসনের প্রতি শিমুল হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির জোড় দাবী জানাচ্ছি।

সংবাদ সন্মেলনে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সীতাকুুুুণ্ড মাইক্রো-কার চালক সমবায় সমিতির সভাপতি সোহরাব উদ্দিন বাবলু, অর্থ সম্পাদক আলাউদ্দিন, নিহতের বাবা আবুল কালাম, মা ছেনোয়ারা বেগম, বোন রাজিয়া সুলতানা।

উল্লেখ যে, গত ১২ এপ্রিল শুক্রবার রাতে সীতাকুণ্ড থেকে চমেক হাসপাতালে রোগীকে রক্ত দিবে বলে একটি কার ভাড়া করে নিয়ে ড্রা নুরুল গনি শিমুলকে হত্যা করে লাশ সাগরে ফেলে দিতে যাওয়ার সময় নগরীর উত্তর কাট্টলী এলাকায় স্থানীয় এলাকাবাসী তিন যুববকে গণপিটুনী দেয়। এসময় একজন পালিয়ে যায় অপর দুই যুবককে পুলিশে সোপর্দ করে। নগরীর আকবরশাহ থানার উত্তর কাট্টলী এলাকায় প্রাইভেটকারের (গাড়ি নং চট্টমেট্রা গ ১২-৫০২৬) ভেতর থেকে চালক শিশ লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। শুক্রবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে কাট্টলী শনি ঠাকুর বাড়ী এলাকা থেকে লাশটি উদ্ধার করে।