চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্রী ধর্ষণ সেনবাগে

ছাত্রী ধর্ষণ সেনবাগ

বিএম ডেস্ক : নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলায় এবার চতুর্থ শ্রেণির এক ছাত্রীকে (১০) ধর্ষণের অভিযোগ ওঠেছে ৬৫ বছরের বৃদ্ধের বিরুদ্ধে। ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত বৃদ্ধ আবুল বসর পলাতক রয়েছেন।

বুধবার রাত ১১টার দিকে সেনবাগ থানা পুলিশ ওই ছাত্রীকে উদ্ধার করে চিকিৎসা ও ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেছে।

গত ১৫ এপ্রিল সেনবাগ উপজেলার মধ্যম মোহাম্মদপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ব্যাপারে শিশুটির বাবা বাদী হয়ে মামলা করেছেন।

সেনবাগ থানা পুলিশের ওসি (তদন্ত) আবদুল আলী পাটোয়ারী জানান, শিশুটির পরিবার দেরিতে পুলিশকে বিষয়টি জানিয়েছে। খবর পেয়েই পুলিশ অভিযান চালায় কিন্তু অভিযুক্তকে আটক করা সম্ভব হয়নি। অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

ওই শিশুটির মা জানান, গত ১৫ এপ্রিল বিকেল ৫টায় মেয়েটি তার সহপাঠীদের নিয়ে খেলছিল। এ সময় পার্শ্ববর্তী মৌলভী বাড়ির আবুল বসর তার বসত ঘরে ডেকে নিয়ে মেয়েটিকে ধর্ষণ করে এবং ঘটনাটি কাউকে না বলার জন্য শাসিয়ে দেয়। ১৬ এপ্রিল বিকেলে শিশুটির সহপাঠীরা আগের দিনে বৃদ্ধের সঙ্গে কী ঘটেছে জিজ্ঞাসা করলে ঘটনাটি ফাঁস হয়। ১৭ এপ্রিল বিকেলে শিশুটির বাবা আবুল বসরের বিকৃত যৌনাচার ও ধর্ষণের বিচার চেয়ে স্থানীয় লোকজনকে জানিয়ে সালিশ বৈঠক ডাকে। পাড়ার লোকজন জড়ো হলেও অভিযুক্ত আবুল বসর বৈঠকে না আসায় রাত পৌনে ১০টায় বিষয়টি থানায় জানান। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে অভিযুক্ত আবুল বসর পালিয়ে যান।

এর আগে গত ৭ এপ্রিল উপজেলার ছাতারপটাইয়া ইউনিয়নের বসন্তপুর গ্রামে তৃতীয় শ্রেণির এক ছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়। পুলিশ ঘটনার সঙ্গে জড়িত সিএনজিচালিত অটোরিকশা চালক রাজনকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে প্রেরণ করে। বর্তমানে ওই মামলাটি তদন্ত করছে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

বিএম/রনী/রাজীব

আরো খবর :: বৈশাখি মেলায় বেড়ানোর নামে কিশোরী ধর্ষণের ঘটনায় মামলা