খুনি ছেলেকে পুলিশে দিলেন মা

খুনি ছেলেকে পুলিশে দিলেন মা

চট্টগ্রাম মেইল : চট্টগ্রাম নগরীর বায়েজিদ থানা এলাকায় ছুরিকাঘাতে বন্ধুকে খুন করার পর পালিয়ে যাওয়া সে খুনীকে গ্রেফতার করতে পুলিশকে সহায়তা করেছে মা।

আজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মা ফাতেমা রহমান ময়নার সহায়তায় পুলিশ খুনি ছেলে ফরহাদকে কর্ণফুলী উপজেলার চরপাথরঘাটা এলাকা থেকে গ্রেফতার করে।

বায়োজিদ বোস্তামি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আতাউর রহমান খন্দকার তথ্যটি নিশ্চিত করে বলেন, শাহাদাত হত্যার ঘটনায় অভিযুক্ত ফরহাদকে তার মায়ের সহযোগিতায় গ্রেফতার করা হয়েছে। উদ্ধার করা হয়েছে হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত ছুরিটিও।

ষোলশহর ৭নং ওয়ার্ড মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বন্ধু শাহাদাতের খুনি ফরহাদের মা ফাতেমা রহমান ময়না এ বিষয়ে বলেন, আমি সততার সাথে আওয়ামী লীগের রাজনীতি করি। কখনো অন্যায়কে প্রশ্রয় দিই না। দুপুরে যখন হত্যাকান্ডটি ঘটে আমি জানতাম না।

বিকেলে ফরহাদ ফোন করে কাঁদতে কাঁদতে ঘটনার বর্ণনা দেন এবং বলে সে বর্তমানে কর্ণফুলি উপজেলার চরপাথরঘাটা এলাকায় অবস্থান করছে। তার ঠিকানা শনাক্ত করে বায়েজিদ থানা পুলিশকে নিজেই ছেলের অবস্থান জানিয়ে দিই। পরে পুলিশ গিয়ে আমার ছেলে ফরহাদকে গ্রেফতার করে।

তবে ছেলে ফরহাদ ঘটনাটি না বুঝে ঘটিয়েছে বলে মন্তব্য করলেও যা করেছে সেটি অপরাধ বলেছেন আওয়ামী লীগের এ নেত্রী।

এর আগে বৃহস্পতিবার দুপুর দেড়টার দিকে বায়েজিদ বোস্তামী থানাধীন হিলভিউ আবাসিক এলাকার ১ নম্বর রোডে প্রাইভেট কার চালক বন্ধু শাহাদাৎকে তুচ্ছ ঘটনায় ছুরিকাঘাত করে ফরহাদ। এতে মৃত্যু হয় ফরহাদের। পরে ঘটনাস্থল থেকেই পালিয়ে কর্ণফুলি থানা চরপাথরঘাটা এলাকায় অবস্থান নেয় খুনি ফরহাদ। সন্ধ্যায় মায়ের সহায়তায় তাকে গ্রেফতার করে বায়েজিদ থানা পুলিশ। নিহত শাহাদাত হোসেন হামজারবাগ হিল ভিউ আবাসিক এলাকার আবদুল হালিমের ছেলে। সে চট্টগ্রাম বন বিভাগের এক কর্মকর্তার ব্যক্তিগত গাড়ি চালক বলে জানিয়েছে পুলিশ।

বিএম/রাজীব..

আরো : বায়েজিদে ছুরিকাঘাতে যুবক খুন