পদ্মা সেতুর জাজিরা প্রান্তে রেলওয়ের গার্ডার বসানোর কাজ শুরু

বিএম ডেস্ক : পদ্মা সেতুর শরীয়তপুরের জাজিরা প্রান্তে ভায়াডাক্টে রেলওয়ের গার্ডার বসানোর কাজ শুরু। রেল চলাচলের জন্য এসব রেলওয়ে গার্ডার বসানো হচ্ছে।

শুক্রবার (১৯ এপ্রিল) দুপুর থেকে এ কাজ শুরু হয়। পদ্মা সেতু প্রকল্পের উপ-সহকারী প্রকৌশলী হুমায়ূন কবির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, দুপুর ১২টা থেকে সাড়ে ১২টা পর্যন্ত জে-২ এবং জে-৩ পিলারে একটি গার্ডার সফলভাবে স্থাপন করেছে দেশি-বিদেশি প্রকৌশলীরা। এ দুই পিলারের মাঝে বসবে আরও ৫টি আই (শুধু রেলের জন্য) গার্ডার।

জাজিরা প্রান্তে ভায়াডাক্টে ৭টি পিলারে বসানো হবে ৩৮ মিটার দৈর্ঘ্য এবং ২ দশমিক ২০ মিটারের আই গার্ডার। এর উপরের অংশের প্রস্থ ০ দশমিক ৬০ মিটার এবং পাদদেশ এর প্রস্থ ০ দশমিক ৮০ মিটার। একটি পিলার থেকে আরেকটি পিলার পর্যন্ত ৬টি গার্ডার বসানো হবে। এই গার্ডারের ওপর পাটাতন বসিয়ে রেললাইন বসানো হবে। জাজিরা প্রান্তে প্রায় ২৬৬ মিটার রেলওয়ে গার্ডার বসানো হবে।

জাজিরা প্রান্তে গার্ডার বসানো হবে ৪২টি। গার্ডার বসানোর জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে সব পিলার।

তিনি আরও জানান, পদ্মা সেতুতে আগামী ২৩ এপ্রিল বসতে যাচ্ছে আরও একটি স্প্যান। সেতুর জাজিরা প্রান্তের ৩৩ ও ৩৪ নম্বর পিলারের ওপর বসানো হবে ১৫০ মিটারের ওই স্প্যানটি।

রাজধানীসহ দেশের মধ্য-পূর্বাঞ্চলের সঙ্গে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের যোগাযোগ স্থাপনের সেতুটি এখন দেড় কিলোমিটার (১৫০০ মিটার) দৃশ্যমান। ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে পদ্মাসেতুর নির্মাণ কাজ শুরু হয়। সেতু নির্মাণে ব্যয় হচ্ছে ৩৩ হাজার কোটি টাকা। মূল সেতু নির্মাণের জন্য কাজ করছে চীনের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান চায়না মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি (এমবিইসি) ও নদী শাসনের কাজ করছে সে দেশেরই আরেকটি প্রতিষ্ঠান সিনো হাইড্রো করপোরেশন।

৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ এ বহুমুখী সেতুর মূল আকৃতি হবে দোতলা। কংক্রিট ও স্টিল দিয়ে নির্মিত হচ্ছে এ সেতুর কাঠামো।

বিএম/রনী/রাজীব