ভারতে সবচেয়ে বেশী পর্যটক যায় বাংলাদেশ থেকে

বিএম ডেস্ক : ভারতে সবচেয়ে বেশি পর্যটকের তালিকায় শীর্ষে আছে বাংলাদেশিরা। ২০১৭ সালে বাংলাদেশ থেকে ২১ লাখ ৫৬ হাজার ৫৫৭ জন ভ্রমণপ্রেমী দেশটিতে বেড়াতে যান। এই সংখ্যা ভারতে যাওয়া বিভিন্ন দেশের মোট পর্যটকের ২১ দশমিক ৪৯ শতাংশ।

সম্প্রতি ভারতের পর্যটন মন্ত্রণালয়ের প্রকাশিত প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়। এর আগের বছর ভারতে পর্যটক পরিসংখ্যানে এগিয়ে ছিল যুক্তরাষ্ট্র। ২০১৬ সালে পর্যটক তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে চলে গেছে যুক্তরাষ্ট্র, এর পরেই আছে যুক্তরাজ্য। ২০১৭ সালে মার্কিন মুলুক থেকে ভারতে পর্যটক এসেছিল ১৩ লাখ ৭৬ হাজার ৯১৯ জন। চার থেকে ১০ নম্বরে আছে যথাক্রমে কানাডা, অস্ট্রেলিয়া, মালয়েশিয়া, শ্রীলঙ্কা, রাশিয়া, জার্মানি ও ফ্রান্স। বাংলাদেশসহ ১০টি দেশ থেকে ২০১৭ সালে ভারতে বেড়াতে যায় ৬৬ লাখ ৩ হাজার ৭৪ জন। আর ওই বছর দেশটিতে মোট পর্যটক গিয়েছিল ১ কোটি ৩৫ হাজার ৮০৩ জন।

পর্যটন মেলায় ওয়েস্ট বেঙ্গল ও আসামের স্টল
ভারতের পর্যটন মন্ত্রণালয় পর্যটনের বিকাশে ‘ইনক্রেডিবল ইন্ডিয়া’ স্লোগান নিয়ে প্রচারণা চালাচ্ছে। স্বাভাবিকভাবেই বাংলাদেশি পর্যটকদের গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে এতে। এর অংশ হিসেবে সহজ করা হয়েছে ভিসা প্রক্রিয়া। ভারতের ১২টি ভিসা আবেদন কেন্দ্র আছে বাংলাদেশে। বিশ্বের আর কোনও দেশে এত ভিসা সেন্টার নেই ভারতের। বিশ্বে তাদের বৃহত্তম ভিসা সেন্টার ঢাকার যমুনা ফিউচার পার্কে।

ভারতের পর্যটন মন্ত্রণালয়ের উপ-মহাপরিচালক ও রিজিওনাল পরিচালক (পূর্ব) সাগ্নিক চৌধুরী বলেন, ভারত পর্যটক বৃদ্ধিতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিচ্ছে, যাতে সহজে পর্যটকরা আসতে পারেন। বাংলাদেশ থেকে সবচেয়ে বেশি পর্যটক ভারতে যান, তাই বাংলাদেশকে কেন্দ্র করেও আমাদের নানান উদ্যোগ রয়েছে। সম্প্রতি নৌপথে পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল শুরু হয়েছে। ভ্রমণপিপাসুদের জন্য ভিসা প্রক্রিয়া সহজ করা হয়েছে। বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যকার সম্পর্ক আরও সুদৃঢ় হচ্ছে। বাংলাদেশ চাইলে ভারতে অন অ্যারাইভাল ভিসা প্রক্রিয়াও চালু করা সম্ভব হবে।’

রাজধানীর আগারগাঁওস্থ বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে তিন দিনের বাংলাদেশ ট্রাভেল অ্যান্ড ট্যুরিজম ফেয়ারে (বিটিটিএফ) ভারতের পর্যযটন মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধিরা অংশ নেন। ‘ইনক্রেডিবল ইন্ডিয়া’ শিরোনামে এক সেমিনারে দেশটির পর্যটন নিয়ে বিভিন্ন তথ্য তুলে ধরা হয়। মেলায় ভারতের বিভিন্ন রাজ্যের ট্যুরিজম বোর্ড, হোটেল ও ট্যুর অপারেটদের অংশগ্রহণ চোখে পড়ার মতো।

চিকিৎসা, ব্যবসা ও কেনাকাটার উদ্দেশ্যেই বাংলাদেশিরা ভারত ভ্রমণ বেশি করেন। পরিসংখ্যান বলছে, ২০১৫ সালে মোট ১ লাখ ৩৪ হাজার ৩৪৪ জনকে চিকিৎসা ভিসা দেয় ভারত, যার অর্ধেকই ছিল বাংলাদেশি। ২০১৬ সালে এই সংখ্যা আরও বেশি। কেপিএমজি সাম্প্রতিক এক প্রতিবেদনে বলেছে, মানসম্পন্ন স্বাস্থ্যসেবা এবং প্রতিবেশী দেশটিতে (বাংলাদেশ) দক্ষ জনবলের অভাবের কারণেই চিকিৎসা নিতে বাংলাদেশ থেকে সবচেয়ে বেশি মানুষ ভারত যাচ্ছেন। এর বাইরে কয়েক বছর ধরে বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের ব্যবসা-বাণিজ্যের পরিমাণও আগের তুলনায় অনেক বেড়েছে। এসব কারণেও ভারতে পর্যটক বাড়ছে।

বাংলাদেশি পর্যটক সবচেয়ে বেশি ঢাকা-কলকাতা রুটের বাসে ভ্রমণ করেন। পশ্চিমবঙ্গের হরিদাসপুর দিয়েই সবচেয়ে বেশি মানুষ ভারতে যায়।

পর্যটন খাতের মাধ্যমে ২০১৬ সালে ভারতের আয় হয়েছে প্রায় ২ হাজার ৩০০ কোটি ডলার, যা ২০১৫ সালের চেয়ে ৯ দশমিক ৮ শতাংশ বেশি।

বিএম/রনী/রাজীব