শ্রীলঙ্কায় সিরিজ বোমা:৩৫ জন বিদেশীসহ নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১৫৮

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : শ্রীলঙ্কায় চারটি গির্জা, তিনটি হোটেল ও একটি স্থানে সিরিজ বোমা হামলার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় মৃতের সংখ্যা কমপক্ষে ১৫৮ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। আর আহত হয়েছেন আরও ৫০০ জনের বেশি। কলোম্বো পুলিশ বলছে, কারা এ বোমা হামলা করেছে তা এখনও পরিষ্কার নয়। আমাদের কর্মীরা আহতদের উদ্ধারে কাজ করছেন।

রোববার (২১ এপ্রিল) সকালে দেশটির রাজধানী কলম্বোর উত্তরাঞ্চলের গির্জা ও নিকটবর্তী নেগোম্বা শহরের গির্জা এবং আশপাশের কয়েকটি হোটেলে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

রোববার খ্রিস্টান ধর্মালম্বীদের বড় ধর্মীয় উৎসব ইস্টার সানডে। প্রার্থনার জন্য খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীরা গির্জায় জড়ো হতে থাকেন। আর এর মাঝেই পৃথক জায়গায় প্রায় একই সময়ে এসব হামলা চালানো হয়েছে।

হামলার পর কলোম্বোর কাটুয়াপিটিয়ার সেন্ট সেবাস্টিন গির্জার ফেসবুক পেজে বলা হয়, আমাদের গির্জায় বোমা হামলা হয়েছে। এখানে যদি আপনার পরিবারের সদস্য থাকেন তাহলে আসুন, তাদের পাশে দাঁড়ান।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম সানডে টাইমসের খবরে বলা হয়, পৃথক হামলায় কমপক্ষে ১৫৮ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও সাড়ে ৫শ’র বেশি মানুষ।যাদের কলম্বোর বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

কলম্বো ন্যাশনাল হসপিটালের এককর্মী সংবাদমাধ্যমকে জানান, প্রাথমিকভাবে আটজনের চিকিৎসা শুরু হয়। কিন্তু অল্প সময়ের মধ্যেই রোগীর সংখ্যা বাড়তে থাকে।

এ ঘটনায় শোক জানিয়ে শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট মাইত্রিপালা সিরিসেনা সবাইকে ধৈর্য্য ধরতে আহ্বান জানিয়েছেন।

ছয় জায়গায় একযোগে বোমা হামলায় ১৫৬ জন নিহত হওয়ার ঘটনার পর রাজধানী কলম্বোতে আরও দুটি বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে বলা হয়েছে, রোববার সপ্তম বিস্ফোরণটি রাজধানী আরও একটি হোটেলে এবং অষ্টম বিস্ফোরণটি রাজধানীর দেমাটাগোদা এলাকায় ঘটেছে ।

“চিড়িয়াখানার কাছে দেহিওয়ালা হোটেলে আরেকটি বিস্ফোরণ ঘটেছে,” রয়টার্সকে বলেছেন এক পুলিশ কর্মকর্তা।

এ বিস্ফোরণে দুই পুলিশ কর্মকর্তা নিহত হয়েছেন বলে প্রকাশিত প্রতিবেদনের বরাতে জানিয়েছে বিবিসি।

এক প্রত্যক্ষদর্শী স্থানীয় এক টেলিভিশনকে জানিয়েছেন, হোটেলটির কাছে মাটিতে ছিন্ন একটি মাথা ও বেশকিছু দেহাংশ পড়ে থাকতে দেখেছেন তিনি।

শ্রীলংকা ট্র্যাজেডি : হদিস নেই শিশুসহ দুই বাংলাদেশি পর্যটকের

চারজন বাংলাদেশির একটি দল কলম্বো গিয়েছিল টুরিস্ট হিসেবে। তাদের মধ্যে দুজনের হদিস পাওয়া গেলেও এক শিশুসহ অপর দুজনের খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না, জানিয়েছেন বাংলাদেশের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম ।

রোববার দুপুরে ঢাকায় এক ব্রিফিংয়ে তিনি বলেন, “দুজন বাঙালি আন অ্যাকাউন্টেড। তাদের পরিবারের অন্যরা অ্যাকাউন্টেড। আমরা তাদের অবস্থা জানার চেষ্টা করছি। যত তাড়াতাড়ি ট্রেস করা যাবে, আমরা তাদের পরিবারকে জানাব।”

ওই দুইজনের নাম পরিচয় তাৎক্ষণিকভাবে প্রকাশ করেননি প্রতিমন্ত্রী । তিনি বলেন, ওই দুইজনের খোঁজে কলম্বোর হোটেল ও হাসপাতালগুলোতে খোঁজ করা হচ্ছে।

এদিকে ঘটনার পর থেকে শ্রীলঙ্কায় অবস্থানরত সব বাংলাদেশির সঙ্গে যোগাযোগ করে তাদের খোঁজ খবর নেওয়ার চেষ্টা করছেন বাংলাদেশ হাইকমিশন। বাংলাদেশিদের তথ্য পাওয়ার সুবিধার জন্য কলম্বোয় বাংলাদেশ দূতাবাসের প্রশাসনিক কর্মকর্তা মোসাৎ মাহমুদা বেগমকে নিয়ে নিয়ােজিত করা হয়েছে। বাংলাদেশি কারও কোনো সহযোগিতা বা তথ্যের প্রয়োজন হলে +৯৪৭১২৪০৬৩১৩ নম্বরে ফোন করে মাহমুদার সঙ্গে কথা বলতে পারবেন।

বিএম/রনী/রাজীব

আরো খবর:: শ্রীলঙ্কার গির্জায় সিরিজ বোমা হামলায় নিহত ১৩৭