রূপগঞ্জে গ্যাস লাইন বিস্ফোরণে নিহত ২

বিএম ডেস্ক : নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে এক বাড়িতে গ্যাস লাইন বিস্ফোরণে দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় দগ্ধ হয়েছেন আরও সাতজন।

সোমবার (২২ এপ্রিল) ভোরে উপজেলার ভুলতা ইউনিয়নের সাঁওঘাট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- মেহেরপুর জেলার মজিবনগর থানার কোমরপুর এলাকার দুদু মিয়ার ছেলে শামিম (৩০) ও ঝালকাঠি জেলার নলছিটি থানার কয়া এলাকার রহিম বিশ্বাসের ছেলে হেলাল বিশ্বাস রাকিব (২৫)।

তিতাস গ্যাসের হাইপ্রেসার পাইপলাইন থেকে নেয়া অবৈধ গ্যাস সংযোগের কারণেই এ ঘটনা ঘটতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের পাশে উপজেলার সাওঘাট এলাকায় রাবেয়া আক্তার মিলি নামে এক আইনজীবীর দোতলা বাসায় পাশ দিয়ে স্থাপিত তিতাস গ্যাসের হাই-প্রেসারের পাইপলাইন থেকে অবৈধভাবে গ্যাসের সংযোগ নেয়া হয়। ওই ভবনটি স্থানীয় নেক্সট এক্সোসরিস লিমিটেড নামের পোশাক কারখানার শ্রমিকদের কাছে ভাড়া দেয়া হয়। ভোর সোয়া ৩টার দিকে হঠাৎ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এ সময় পুরো এলাকা কেঁপে ওঠে।

বিকট ওই বিস্ফোরণের শব্দে এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। পরে আশপাশের লোকজন গুরুতর দগ্ধ অবস্থায় ছয়জনকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে পাঠায়। আরও তিনজনকে নেওয়া হয় স্থানীয় একটি ক্লিনিকে।

ছয়জনকে ঢাকা মেডিকেলে আনার পর শামিম ও হেলালকে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন বলে মেডিকেল পুলিশ ফাঁড়ির পুলিশ সদস্যরা জানান।

এ ব্যাপারে বাড়ির মালিক রাবেয়া আক্তার মিলি বলেন, অন্যরা যেভাবে অবৈধ গ্যাস সংযোগ নিয়েছে আমিও সেভাবেই নিয়েছি। তবে আমার বাড়িতে পরিকল্পিতভাবে এ ঘটনা ঘটানো হয়েছে।

ভুলতা পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক রফিকুল বলেন, ধারণা করা হচ্ছে, হাই-প্রেসার লাইন থেকে ওই বাসায় অবৈধভাবে গ্যাস সংযোগ নেওয়া হয়েছিল। শবে বরাতের রাতে মিল-কারখানা বন্ধ থাকায় গ্যাসের প্রেসার বেশি ছিল। কোনো লিকেজ থেকে পুরো বাসায় গ্যাস ছড়িয়ে পড়েছিল বলে বিস্ফোরণ ঘটেছে।

তিতাস গ্যাসের সোনারগাঁও জোনের সুপারভাইজার ইসমাইল হোসেন বলেন, এর আগেও এ ধরনের আরো বেশ কয়েকটি ঘটনা ঘটেছে। গ্যাসের প্রেসার অধিক ছিল। হয়তো বিল্ডিংয়ের ভেতরে গ্যাস ছড়িয়ে ছিল। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

বিএম/রনী/রাজীব