বনলতা এক্সপ্রেস’র উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী

বিএম ডেস্ক : রাজশাহী-ঢাকা রুটে বিরতিহীন ট্রেন ‘বনলতা এক্সপ্রেসের’ উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৃহস্পতিবার (২৫ এপ্রিল) সকাল ১০টায় গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বাঁশি বাজিয়ে ও সবুজ পতাকা উড়িয়ে ট্রেনটির উদ্বোধন করেন।

রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন ও রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন উপস্থিত ছিলেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের জন্য প্রথম দিন ট্রেনটি দেরিতে রাজশাহী থেকে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যাবে। অন্যান্য দিন যথারীতি সকাল সাতটা থেকে ট্রেনটি ঢাকার উদ্দেশে রাজশাহী ছেড়ে যাবে।

উল্লেখ্য, এই ট্রেনটিতে ১২টি কোচ থাকবে। এর আসন সংখ্যা ৯২৮। এর মধ্যে এসি চেয়ার ১৬০টি, শোভন চেয়ার ৬৪৪টি, খাবার গাড়িতে আসন ১০৮টি এবং পাওয়ার কারে ১৬টি।

ট্রেনটি রাজশাহী থেকে সকাল ৭টায় ছেড়ে ঢাকা পৌঁছাবে বেলা ১১টা ৪০ মিনিটে এবং ঢাকা থেকে ছাড়বে বেলা ১টা ১৫ মিনিটে এবং রাজশাহী পৌঁছাবে সন্ধ্যা ৬টায়।

এরআগে মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) দিনগত রাতে ঈশ্বরদী জংশন থেকে রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনে পৌঁছায় বনলতা এক্সপ্রেস। উদ্বোধনের পর ট্রেনটি সেখান থেকে সকাল ১১টা ২ মিনিটে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে।

রেলমন্ত্রীর সাথে সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বনলতায় ঢাকার পথে

এদিকে দেশের প্রথম ও সর্বাধুনিক হাইস্পিড ট্রেন হচ্ছে ‘বনলতা এক্সপ্রেস’। কিন্তু রাজশাহী-ঢাকা রুটের জন্য এ একজোড়া ট্রেন পেয়েছে পুরোনো দু’টি ইঞ্জিন। এগুলো ২০১৩ সালে ভারত থেকে আমদানি করা। এ ইঞ্জিন ঘণ্টায় সর্ব্বোচ্চ গতিবেগ ৯০ থেকে ৯৫ কিলোমিটার।

নতুন ইঞ্জিন ও মজবুত ট্র্যাক পেলে এটি প্রতি মিনিটে আড়াই কিলোমিটার পথ পাড়ি দিতে সক্ষম হতো। ৩৪৩ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে ট্রেনটি ৪ থেকে সাড়ে ৪ ঘণ্টায় পৌঁছাতো গন্তব্যে।

এছাড়া এই ট্রেনটিতে বাংলাদেশ রেলওয়ের প্রথম নিজস্ব ক্যাটারিং অ্যান্ড ট্যুরিজম সার্ভিসেস (বিআরসিটিএস) দ্বারা খাবার সরবরাহ করা হবে। খাবার মূল্য ১৫০ টাকাসহ শোভন চেয়ারের মূল্য ৪২৫ টাকা এবং এসি চেয়ারের মূল্য ৮৭৫ টাকা।

বিএম/রনী/রাজীব