জাহিদুরকে বিএনপি থেকে বহিষ্কার

বিএম ডেস্ক : দলীয় সিদ্ধান্ত অমান্য করে শপথ নেয়ায় সংসদ সদস্য জাহিদুর রহমানকে বিএনপি থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

আজ শনিবার (২৭ এপ্রিল) বিএনপির সর্বোচ্চ নীতি নির্ধারনী ফোরাম- জাতীয় স্থায়ী কমিটির এক সভায় জাহিদুরকে বহিষ্কার করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। গুলশানে দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার কার্যালয়ে এই বৈঠকটি হয়।

বৈঠক শেষে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমাদের দলের সিদ্ধান্ত ছিল, যাঁরা নির্বাচিত বলে ঘোষিত হয়েছেন (একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে) তাঁরা সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নেবেন না। এই সিদ্ধান্ত লঙ্ঘন ও তা এড়িয়ে গিয়ে শপথ গ্রহণ করার জন্য আমাদের দলের ঠাকুরগাঁও-৩ আসনের জাহিদুর রহমান; তাঁকে সর্বসম্মতিক্রমে আজ বিএনপির প্রাথমিক সদস্যপদসহ সব পদ থেকে বহিষ্কার করা হলো।’

বৈঠকে সাংবাদিক মাহফুজ উল্লাহর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করা হয়।

বৈঠকে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মওদুদ আহমদ, জমিরউদ্দিন সরকার, মাহবুবু্র রহমান, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে স্কাইপের মাধ্যমে লন্ডন থেকে যুক্ত ছিলেন দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

ঠাকুরগাঁও-৩ আসন থেকে নির্বাচিত বিএনপির প্রার্থী জাহিদুর রহমানকে জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন গত বৃহস্পতিবার শপথবাক্য পাঠ করান।

৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনে বিএনপির নেতৃত্বাধীন জোট থেকে আটজন প্রার্থী নির্বাচিত হয়েছিলেন। বিএনপির ছয় এবং জোট শরিক গণফোরামের দুজন নির্বাচিত হন। এর আগে, দলের নির্দেশনা না মেনে শপথ নেওয়ায় মৌলভীবাজার-২ আসন থেকে নির্বাচিত সুলতান মোহাম্মদ মনসুরকে বিএনপির জোটসঙ্গী গণফোরাম থেকে বহিষ্কার করা হয় এবং সিলেট-২ আসন থেকে নির্বাচিত মোকাব্বির খানের বিরুদ্ধে দলের পক্ষ থেকে ব্যবস্থা নেওয়ার ঘোষণা দেওয়া হয়।

শপথ নেওয়ার পর তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় জাহিদুর রহমান সাংবাদিকদের বলেছিলেন, “দলের সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে শপথ নিয়েছি। দল আমাকে বহিষ্কার করতে পারে জেনেও আমি শপথ নিয়েছি। দল বহিষ্কার করলেও আমি দলে আছি।”

বিএম/রনী/রাজীব