মর্গে লাশের পেটে পাওয়া গেল ১১ প্যাকেট ইয়াবা

বিএম ডেস্ক : ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল মর্গে ময়নাতদন্তের সময় লাশের পেটে ১১টি ইয়াবার প্যাকেট পাওয়া গেছে। যার প্রতিটিতে ২০ থেকে ২৫টি করে ইয়াবা রয়েছে।

শনিবার (২৭ এপ্রিল) লাশটির ময়নাতদন্ত শেষে ঢামেকের ফরেনসিক বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ডা. সোহেল মাহমুদ এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, ময়নাতদন্ত করার সময় মৃত ওই ব্যক্তির পেট থেকে ১১টি ইয়াবার পোটলা উদ্ধার করা হয়েছে, প্রতি পোটলায় ২০-২৫টি করে ইয়াবা ছিল। এর মধ্যে বেশ কিছু ইয়াবা গলে গিয়েছিল, হয়তো এই কারণেই তার মৃত্যু হয়েছে।

নিহত ওই ব্যক্তির নাম জুলহাস মিয়া (৩২)। তিনি নেত্রকোণার কেন্দুয়া উপজেলার ভবানীপুর গ্রামের আক্কাস মিয়ার ছেলে। গতকাল শুক্রবার মতিঝিল থানা পুলিশ ওই ব্যক্তির লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেকে নিয়ে আসে।

মতিঝিল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ওমর ফারুক বলেন, শুক্রবার সকালে মতিঝিলের বিশ্বাস টাওয়ারের সামনে ওই ব্যক্তিকে অচেতন অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেন স্থানীয়রা।

পরে পুলিশ গিয়ে তাকে উদ্ধার করে মুগদা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল বেলা ১১টার দিকে জুলহাস মারা যায়। পরে ময়নাতদন্তের জন্য সন্ধ্যায় তার লাশ ঢামেক হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়।

জুলহাসের মৃত্যুর পর তার পরিবারের সদস্যরা ময়নাতদন্ত ছাড়াই লাশ নেওয়ার চেষ্টা করে বলে জানিয়ে ওসি বলেন, পুলিশ অনুমতি না দিয়ে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করে।

“প্রাথমিক তদন্ত করতে গিয়ে পুলিশ জানতে পেরেছে জুলহাসের বিরুদ্ধে নেত্রকোনা সদর থানায় একটি এবং আটপাড়া থানায় একটি মাদক মামলা রয়েছে।”

বিএম/রনী/রাজীব