সীতাকুণ্ডের পুলিশ সদস্য জনির মৃতদেহ মেঘনা নদী থেকে উদ্ধার

সীতাকুণ্ড প্রতিনিধি : চাঁদপুর মেঘনা নদীতে জেলেদের হামলায় নিখোঁজ হওয়ার তিনদিন পর সীতাকুণ্ডের পুলিশ সদস্য মোশাররফ হোসেন জনির (৩০) মৃতদেহ মেঘনা নদীতে ভেসে উঠেছে।

আজ সকালে নদীতে একটি লাশ ভেসে উঠলে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে।পুলিশ সদস্য জনি সীতাকুণ্ড উপজেলার বাড়বকুণ্ড ইউনিয়নের মিয়াজী পাড়া,অলিনগর গ্রামের জামাল উল্ল্যার ছেলে।

জনির বড় ভাই জানান, গত শুক্রবার রাত ৮টায় চাঁদপুর জেলার চরকোরালিয়া নামক স্থানের মেঘনা নদীতে জেলেদের জাটকা ধরার সময় অভিযান চালায় পুলিশ। এ সময় তারা জেলেদের হামলার শিকার হয়। অভিযানে একটি স্পিড বোটে এএসআই সুমন, পুলিশ সদস্য শাহাদাতসহ সাদা পোশাকে ২/৩ পুলিশ সদস্য ছিলেন। আরেকটি স্পিড বোটে পুলিশ সদস্য জনি, কনস্টেবল মো. রবিউল, বোটের মাঝিসহ সাদা পোশাকে আরও দুইজন পুলিশ সদস্য ছিলেন।

এক পুত্র সন্তানের জনক মোশারফ হোসেন জনির স্ত্রী শামীমাও পুলিশ সদস্য। উভয়ে হাইমচর থানায় কর্মরত। মোশারফ এর ৫ ভাই ২বোন। ভাইদের মধ্যে মোশারফ সবার ছোট। লাশ গ্রামের বাড়ি সীতাকুণ্ডে নিয়ে আসবে বলে জানান জনির বড় ভাই।

বিএম/কামরুল/রাজীব…

আরো খবর::  ৬৫টি প্রকল্পের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী