প্রস্তুতি ম্যাচে পাকিস্তানকে হারিয়ে দারুন সুচনা করলো আফগানিস্তান

    বিশ্বকাপের প্রথম অফিসিয়াল প্রস্তুতি ম্যাচে পাকিস্তানকে ৩ উইকেটের ব্যবধানে হারিয়ে দুর্দান্ত সুচনা করেছে আফগানিস্তান। আগে ব্যাট করে ২৬২ রানে অলআউট হয় পাকিস্তান। জবাবে ৪৯.৪ ওভারে জয় তুলে নেয় আফগানরা।

    আফগানদের ঝড়ো সুচনা এনে দেন ওপেনার হযরতুল্লাহ জাজাই। ২৮ বলে ৪৯ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন তিনি। তার বিদায়ের পর দলের হাল ধরেন হাসমতুল্লাহ শহীদি। তাকে সঙ্গ দিয়ে ছোট ছোটনকিছু পার্টনাশিপ গড়ে ফিরে যান নবী(৩৪) ও রহমত শাহ(৩২)।

    পরবর্তীতে ম্যাচে ৪৮তম ওভারে ওয়াহাব রিয়াজের দুর্দান্ত ইয়র্কারে পরপর দুই উইকেট গেলে কিছুটা চাপে পড়ে আফগানরা। তবে হাসমতুল্লাহর অপরাজিত ৭৪ রানে ২ বল আগেই জয় তুলে নেয় আফগানিস্তান।

    পাকিস্তানের হয়ে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নিয়েছেন ওয়াহাব রিয়াজ।

    এর আগে ব্রিস্টলে টসে জিতে আফগানিস্তানের বিপক্ষে বিশ্বকাপের প্রস্তুতি ম্যাচে ব্যাটিংয়ে নেমে চরম বিপদে পড়ে যায় পাকিস্তান। উদ্বোধনীতে জুটিতে ৪৭ রান করেন দুই ওপেনার ফখর জামান ও ইমাম-উল-হক।

    ইনজুরি কাটিয়ে খেলায় ফেরা ইমাম-উল-হক৩৫ বলে পাঁচটি চারের সাহায্যে ৩২ রান করতেই হামিদ হাসানের বলে বোল্ড হন।

    ইমামুলেরবিদায়ের পর সুবিধা করতে পারেননি অন্য ওপেনার ফখর জামান। মোহাম্মদ নবীর অফ স্পিনে বোল্ড হয়ে ফেরেন পাকিস্তান সেরা এই ওপেনার।তার আগে ২৩ বলে ১৯ রান করার সুযোগ পান পাকিস্তানের হয়ে ওয়ানডে ক্রিকেটে একমাত্র ডাবল সেঞ্চুরি করা ফখর।

    এরপর চার নম্বর পজিশনে ব্যাটিংয়ে নামা হারিস সোহেল ফেরেন রানের খাতা খুলেই। মোহম্মদ নবীর বলে বোল্ড হয়ে সাজঘরের পথ ধরেন পাকিস্তানের এই তারকা ক্রিকেটার।

    ১৮ রানের ব্যবধানে ইমাম-উল-হক, ফখর জামান ও হারিস সোহেলমতো সেরা তিনব্যাটসম্যানের উইকেট হারিয়ে চরম বিপদে পড়ে যায় পাকিস্তনা। মজার ব্যাপার হলো তিন ব্যাটসম্যানই বোল্ড হয়ে প্যাভেলিয়নে ফেরেন।

    তবে হাল ধরে থাকেন বাবজ আজম একদিক আগলে রেখে ১০৮ বলে খেলেন ১১২ রানের দুর্দান্ত এক ইনিংস। তার বিদায়ের পর দ্রুতই উইকেট হেরে ১৩ বল আগেই ২৬২ রানে অলআউট হয় পাকিস্তান।

    আফগানিস্তানের হয়ে মোহাম্মদ নবি ৩ টি, রশিদ খান ও দওলত জর্দান সর্বোচ্চ ২ টি করে উইকেট নেন।

    শুক্রবার ইংল্যান্ডের ব্রিস্টলের কাউন্টি গ্রাউন্ডে বিশ্বকাপের আগেপ্রস্তুতি ম্যাচে টস জিতে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেন পাকিস্তান ক্রিকেট দলের অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ।

    বিএম/রনী/রাজীব