নায়িকা হবার স্বপ্নটা এভাবে থমকে যাবে কল্পনাও করতে পারিনি:কথা মনি

“নায়িকা হবার স্বপ্নটা এভাবে থমকে যাবে কখনো কল্পনাও করতে পারিনি”। কথা গুলো যখন বলছিলেন এই প্রজন্মের নবাগত চলচিত্র অভিনেত্রী কথা মনি, তখন তার চোখ ছল ছল করছিল। অশ্রু ভিজা চোখের সাথে কথা মনির কণ্ঠও যেন বাকরুদ্ধ হয়ে পড়ছিল বার বার।

যশোর থেকে ঢাকায় এসেছিলেন বড় পর্দায় অভিনয় করবেন বলে। এইচ.এস.সি পরীক্ষা শেষে ঢাকায় এসেছে ভর্তি হন একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে।

উপস্থাপনায় কথা মনি

 

গত একবছরে অনেক নাটক, টেলিফিল্ম, মিউজিক ভিডিওর অফার পেয়েছেন তবে হাসি মুখে সব প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছেন। কথা মনির স্বপ্ন ছিল বড় পর্দার নায়িকা হবেন।

এই এক বছরের মাঝে প্রতিষ্ঠিত পরিচালক হাসিবুল ইসলাম মিজানের সাথে তার যোগাযোগ হয়। প্রায় একটি বছর মিডিয়াতে ধৈর্য্য ধরে বসেছিলেন। এক বছর পর বড় পর্দায় একক নায়িকা হিসাবে জুটি বাধেন চিত্র নায়ক আরিয়ান শাহ এর সাথে “মনে মনে প্রেম” ছবিতে। ছবির পরিচালক হাসিবুল ইসলাম মিজান। মহরতের দিনে তার নিজের নামের সাথে “নায়িকা তকমাটি” যুক্ত হলো।

মনে মনে প্রেম সিনেমার দৃশ্য

অভিনেত্রী কথা মনি বলেন, “ জানেন যেদিন প্রথম বড় পর্দার জন্য স্যুটিং করলাম এফডিসিতে ঐ দিন অঝোরে কেঁদেছিলাম। সেটা ছিল আনন্দের অশ্রু জল। কে জানতো এই মাত্র কয়েক দিন পরেই এই আনন্দ অশ্রুই আমার বেদনার কান্না হয়ে থাকবে সাড়াটি জীবন। স্যুটিং শুরুর মাত্রই ১৫ দিনের মাথাতেই “দাদা ভাই” হুট করেই চলে গেলেন না ফেরার দেশে। পরিচালক মিজান ভাইকে আমি দাদা ভাই ডাকতাম। তিনি আমাকে নিজের ছোট বোনের মত স্নেহ করতেন।

সিনেমায় নাচের দৃশ্যে কথা মনি

“দাদা ভাই” আমাকে বলতেন ,“ কথা, তোমার উচ্চরণ বচন ভঙ্গি গুছিয়ে কথা বলার একটা আলাদা ধরণ আছে। আপতত অভিনয় না করলে, চাইলে তো তুমি উপস্থাপনা করতে পারো। ” মূলত দাদা ভাইয়ের অনুপ্রেরনাতেই উপস্থাপনা শুরু করেন “মাইটিভি”তে। দাদা ভাই তাকে পরিচয় করিয়ে দেন মাইটিভির চেয়ারম্যান নাসির উদ্দিন সাথী ভাইয়ের সাথে। প্রথম হারুন মেহেদীর প্রযোজনায় উপস্থাপনা করনে “গানের সুরে মাতো” অনুষ্ঠানটি। এরপর একে একে “রিদম অফ আর্ট”, “সিনে সং, সিনেমার গান” ছাড়াও ঈদের বেশ কয়েক অনুষ্ঠানে উপস্থাপিকা হিসাবে অংশ নেন অভিনেত্রী কথা মনি।

কথা মনি বলেন, উপস্থাপনা করছি কিন্তু মন পড়ে আছে রুপাদী পর্দায়। প্রায়ই দাদা ভাই কে বলতাম আর কত ধৈর্য্য ধরবো? দাদা ভাই হেসে বলতেন সবুর কর, জানতো সবুরে মেওয়া ফলে!।

মাইটিভিতে উপস্থাপনায় কথ মনি

নায়িকা হবার স্বপ্ন মাথায় কেন এলো ? এমন প্রশ্নের জবাবে কথা মনি বলেন, “ আমি যখন সপ্তম শ্রেণিতে পড়ি তখন থেকে বাংলা ছবি দেখতাম। আমি ছিলাম চিত্রনায়িকা শাবনূর আপুর অন্ধ ভক্ত। ছোট বেলায় জাতীয় শিশু পুরস্কার প্রতিযোগিতা, শিক্ষা সপ্তাহ, স্কুল কলেজে অভিনয় করে অনেক পুরস্কার পেয়েছিলাম। তখন থেকে স্বপ্ন জাল বোনা শুরু করেছিলাম একদিন আমিও অভিনেত্রী হবো, আমি নায়িকা হবো”।

“ মনে মনে প্রেম” ছবিটির মহরতের পর পর বেশ কিছু ছবিতে অভিনয়ের প্রস্তাব পেয়েছি। এর মাঝে পরিচয় হয়েছে চলচিত্র পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান মানিক ভাই, উত্তম আকাশ ভাই, আবুল কালাম আজাদ ভাই, শাহ আলম মন্ডল ভাইয়ের সাথে। কাজ নিয়ে কথাও হয়েছে কিন্তু এখনো আমি মানুষিক ভাবে অতটা প্রস্তুত নই।

বড় পর্দায় সূচনা পথেই প্রচন্ড একটা ধাক্কা খেয়েছি, “দাদা ভাই” কে হারিয়ে অনেক ভেঙ্গে পড়েছি। আজ “দাদা ভাই” পরিচালক হাসিবুল ইসলাম মিজান ভাইয়ের একটা কথা খুব বেশি মনে পড়ছে। আমি কখনো মন খারাপ করে থাকলে তিনি বলতেন, কথা কোন বিষয় নিয়ে মন খারাপ করবে না। মনে রাখবে যে কাজে যত বাধা সেই কাজের সফলতাও ততটা বেশি। সকল প্রতিকুলতা পেরেয়ে যখন সফলতার মুখ দেখবে তখন তোমার মনে যেই আনন্দ ফুটে উঠবে সেটা তুলনায় তুমি ভাষাতেও লিখে প্রকাশ করতে পারবে না”।

আহমেদ সাব্বির রোমিও