রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীতে নারী সদস্য নিয়োগ করা হবে

রেলওয়ের নিরাপত্তা বাহিনীতে(আরএনবি) সরকার নারী সদস্য অন্তর্ভুক্তের পরিকল্পনা করছে সরকার জানিয়েছেন রেলমন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন। বর্তমানে দেশের সব বাহিনীতে নারী সদস্য থাকলেও রেলওয়ের নিরাপত্তা বাহিনীতে কোনো নারী সদস্য নেই বলে মন্তব্য করেন মন্ত্রী।

আজ বৃহস্পতিবার (২ মে) চট্টগ্রামের খুলশীতে বাংলাদেশ রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের নিরাপত্তা বাহিনীর ট্রেনিং সেন্টারে ৫২তম ব্যাচের সদস্যদের প্রশিক্ষণ সমাপনী কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি।

মেডেল পরিয়ে দিচ্ছেন মন্ত্রী

তিনি বলেছেন, সরকার রেলওয়েতেও কর্মঠ ও প্রশিক্ষিত নারী সদস্য নিয়োগের প্রক্রিয়া নিয়ে চিন্তা করছে। সামনে এ বাহিনীতে নারী কর্মীরা কাজ করার সুযোগ পাবেন।

রেলপথমন্ত্রী বলেন, রেলের অতীতের ঐতিহ্যকে আবার ফিরিয়ে আনতে হবে। রেলওয়ের সম্পদ যেগুলো বেদখল হয়েছে সেগুলো উদ্ধার করে সম্পদে পরিণত করতে হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্ন এ রেলকে একটি আধুনিক সেবায় নিয়ে যাবেন।

রেলমন্ত্রী বলেন, বিএনপি সরকার দায়িত্ব নিয়ে জনপ্রিয়, নিরাপদ ও সাশ্রয়ী রেলওয়ে খাতকে ধ্বংসের মুখে নিয়ে যায়। ১৯৭০ সালে রেলওয়ের জনবল ছিল ৬৮ হাজার। ১৯৮৬ পরে সামরিক সরকার এ খাতকে আরও বেহাল রুপ দেয়। পরবর্তীতে ৯২ ও ৯৩ সালে গোল্ডেন হ্যান্ডশেকের মাধ্যমে বিএনপি কর্মী ছাঁটাই শুরু করে। জনবল নিয়ে আসে মাত্র ১৫হাজারে। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী দায়িত্ব গ্রহণের পর ২০১১ সালের ৪ ডিসেম্বর যোগাযোগ মন্ত্রণালয়কে আলাদা করে রেলওয়েকে নতুন রুপ দেয়। এর ধারাবাহিকতায় রেলওয়েতে যুক্ত হয় আধুনিক কোচ এবং অন্তঃনগর সার্ভিস। বর্তমানে ২৭ হাজার জনবলে এর সঙ্গে সম্পৃক্ত রয়েছেন।

কুচকাওয়াজে অংশ নেওয়া নিরাপত্তা বাহিনীকে নিজেদের দায়িত্ব এবং কাজের প্রতি নির্দেশনা প্রদান করেন মন্ত্রী। দেশমাতৃকার সেবায় নিয়োজিত থেকে সততা, নিষ্ঠার সঙ্গে সর্বদা দায়িত্ব পালনের আহ্বান জানান তিনি।

অনুষ্ঠানে রেলওয়ের মহাপরিচালক মো. রফিকুল আলম, রেলওয়ের পূর্বাঞ্চলের মহাব্যবস্থাপক সৈয়দ ফারুক আহমেদ, রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনী পূর্বাঞ্চলের চীফ কমান্ড্যান্ট মোঃ ইকবাল হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বিএম/রনী/রাজীব