ওডিশায় শিশুর নাম রাখা হলো “ফণী”

ভারতে শুক্রবার সকালে জন্ম নেওয়া একটি শিশুর নাম রাখা হয়েছে আলোচিত ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’র নামে। এদিন দেশটির ওডিশায় প্রবল এই ঘূর্ণিঝড়টি সকাল ৮টায় আঘাত হানে। তার তিন ঘণ্টা পর ভুবনেশ্বরের একটি হাসপাতালে ওই মেয়ে শিশুটির জন্ম হয়।

ওডিশার রাজধানী ভুবনেশ্বরের রেলওয়ে হাসপাতালে আজ শুক্রবার স্থানীয় সময় বেলা ১১ টা ৩ মিনিটে পৃথিবীর আলো দেখে কন্যাশিশুটি। শিশুটির মা (৩২) মঞ্চেশ্বর রেলওয়ের কোচ মেরামত ওয়ার্কশপের কর্মচারী। মা ও নবজাতক দুজনেই সুস্থ আছেন বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকেরা।

ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’ নাম দিয়েছে বাংলাদেশ। এর অর্থ সাপ বা ফণা তুলতে পারে এমন প্রাণী।

বিশ্ব আবহাওয়া সংস্থা আঞ্চলিক কমিটি একেকটি ঝড়ের নামকরণ করে। যেমন ভারত মহাসাগরের ঝড়গুলোর নামকরণ করে এই সংস্থার আটটি দেশ। দেশগুলো হচ্ছে: বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান, মিয়ানমার, মালদ্বীপ, শ্রীলঙ্কা, থাইল্যান্ড এবং ওমান, যাদের প্যানেলকে বলা হয় WMO/ESCAP।

২০০৪ সাল থেকে বঙ্গোপসাগর ও আরব সাগরের উপকূলবর্তী দেশগুলোয় ঝড়ের নামকরণ শুরু হয়। সে সময় আটটি দেশ মিলে মোট ৬৪টি নাম প্রস্তাব করে। সেসব ঝড়ের নামের মধ্যে এখন ‘ফণী’ ঝড়কে বাদ দিলে আর সাতটি নাম বাকি রয়েছে।

উল্ললেখ্য, এ রকম ঘটনা অবশ্য নতুন নয়। এর আগেও ঘূর্ণিঝড়ের সময় জন্ম নেওয়া শিশুর নাম ঘূর্ণিঝড়ের নামে রাখার নজির রয়েছে। গত বছর ওডিশাতেই আঘাত হানা ঘূর্ণিঝড় তিতলির সময় জন্ম নেওয়া বেশ কয়েকটি নবজাতকের নাম রাখা হয় ‘তিতলি’।

২০১৬ সালে বিহারের ভোজপুরে ভয়াবহ বন্যার সময় ভারতের ন্যাশনাল ডিজাস্টার রেসপন্স ফোর্সের (এনডিআরএফ) সহায়তার কথা স্মরণে রেখে এক নবজাতকের নাম রাখা হয়েছিল ‘এনডিআরএফ সিং’।

বিএম/রনী/রাজীব