চীন থেকে হুইল চেয়ারের বদলে কনটেইনারে এলো ইট

চট্টগ্রাম বন্দরে হুইল চেয়ার ও ক্রাস প্ল্যাস ওয়াকার ঘোষণায় চীন থেকে আসা তিনটি কনটেইনারে পাওয়া গেছে ইট।

সোমবার (৭ মে) মুদ্রা পাচারের আশঙ্কায় আমদানি ঋণপত্র খোলা ব্যাংককে বিষয়টি জানিয়েছে চট্টগ্রাম কাস্টম হাউস কর্তৃপক্ষ।

কাস্টম সূত্র জানায়, হুইল চেয়ার এবং ক্র্যাচ প্লাস ওয়াকার ঘোষণা দিয়ে কনটেইনারগুলো বন্দরে এনেছিল ঢাকার লোটাস সার্জিক্যাল নামে একটি আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান। আমদানিকারকের পক্ষে চালানটি খালাসের দায়িত্বে ছিল নর্থ বেঙ্গল এন্টারপ্রাইজ নামে একটি সিঅ্যান্ডএফ প্রতিষ্ঠান। গত ২৯ এপ্রিল এমভি সি স্পেন নামে একটি জাহাজে কনটেইনার তিনটি চট্টগ্রাম বন্দরে পৌঁছে।

সরকারি একটি গোয়েন্দা সংস্থার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কনটেইনার তিনটির কায়িক পরীক্ষায় ঘোষণা বহির্ভূত পণ্য পাওয়া যায়।

১ হাজার ৭টি হুইল চেয়ার ও ৪৫০ পিস ক্রাস প্ল্যাস ওয়াকার ঘোষণা থাকলেও একটি কনটেইনারে কেবল ৪০টি হুইল চেয়ার পাওয়া গেছে। বাকিগুলোতে বস্তাভর্তি ইট পাওয়া রয়েছে।

কাস্টম হাউসের কমিশনার কাজী মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, হুইল চেয়ারের একটি চালানে ইট পাওয়া গেছে। আমাদের ধারণা মুদ্রা পাচার হয়েছে। বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে খতিয়ে দেখছি। ইতিমধ্যে বিষয়টি ব্যাংককে জানিয়েছি।

তিনি আরও জানান, সিএন্ডএফ প্রতিষ্ঠানের মালিককে এ বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। আমদানিকারককেও জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। মুদ্রাপাচার আইনে মামলা করার প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে।

বিএম/রনী/রাজীব