এবার পাথরের আঘাতে আহত বিজয় এক্সপ্রেসের ২ যাত্রী

চলন্ত ট্রনে পাথর নিক্ষেপ কোন ভাবেই রোধ করা যাচ্ছেনা। এবার পাথর নিক্ষেপে আহত হয়েছেন বিজয় এক্সপ্রেস ট্রেনের দুই যাত্রী।

রেলওয়েতে কর্মরত মো: মঈন উল্ল্যাহ বাংলাদেশ রেলওয়ে ফেসবুক পেইজে গতরাতে চলন্ত বিজয় এক্সপ্রেস ট্রেনে পাথর নিক্ষেপ ও ছিনতাই সম্পর্কে একটি পোস্ট দিয়েছেন পাঠকদের সুবিধার্তে পোস্টটি তুলে ধরা হলে:

আজ ৭৮৬ নং ডাউন বিজয় এক্সপ্রেসে একই সাথে দুটি ঘটনা আমাকে মর্মাহত করেছে। প্রথমটি আঠারোবাড়ি স্টেশন পার হবার পরই দুরবৃত্তের ছোড়া পাথরের আঘাতে পৃথক দুটি কোচে দুইজন পুরুষ বয়স একজনের ৬০ উর্ধ্ব, যার ঠোঁট ফেটে জায়, আর একজনে বয়স ৪০উর্ধ্ব যার চোখের নিচের অংশ কেটেযায়।

জরুরি তারবার্তার মাধ্যমে ঢাকা কন্ট্রলকে অবহিত করে যাত্রি দুইজনকে কিশোরগন্জ স্টেশনের স্টেশন মাস্টার কর্তিক প্রথমিক চিকিৎসা দিয়ে যথারিতি গাড়ি ছেড়ে যাই।

ট্রেন ভৈরব স্টেশনে পৌঁছলে ছাড়ার আগমূহুর্তেই ছিনতাই কারি এক যাত্রির মোবাইল টানদিলে ঐ যাত্রিও ছিনতাইকারিকে ধরতে লাফিয়ে নামলে তাকে ছিনতাইকারিরা ধারালো চাপাতি দিয়ে এলোপাথারি কুপিয়ে পালিয়ে যায়, ট্রেনের গতি বাড়ার আগেই যাত্রি গাড়িতে উঠে আসে এবং আসেপাশের যাত্রিরা সহ ঐ কোচের স্টুয়ার্ড ম্যনেজারের মাধ্যমে আমাকে জানায়, আমি জানামাত্রই ট্রেনের কর্তব্যরত জি আর পি /এ এস আই ওবায়দুল সাহেবকে বিষটির বিস্তারিত জানতে বলি, এবং যাত্রীর তথ্য সংগ্রহ করে ঢাকা কন্ট্রলকে অবহিত করি।

ট্রেনটি আখাউড়া আসামত্রই যাত্রীকে আখাউড়া জি আর পি পুলিশের সহযোগিতায় দ্রুত চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়। আমি আজকের এই ঘটনায় আহত যাত্রিদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করছি। আল্লাহ এই রমজান মাসের উসিলায় মানুষকে হেদায়েত দান কর।

উল্লেখ্য গত মঙ্গলবার রেলমন্ত্রী পাথর নিক্ষেপকারীদের ধরিয়ে দিতে সাধারণ জনগণের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীও গত কয়েকদিন ধরে রেললাইনের পাশে মাইকিং এবং সচেতনামূলক প্রচারপত্র বিলি করছে।

সাধারণ যাত্রীরা পাথর নিক্ষেপরোধে কঠোর আইন প্রনয়নের দাবি করেছেন।

বিএম…