সীতাকুণ্ডে এক মুক্তিযোদ্ধার তিন নামে তিন পাসপোর্ট!

সীতাকুণ্ড প্রতিনিধি : সীতাকুণ্ডে ভূয়া মুক্তিযোদ্ধা সেজে নিজ সন্তানদেরকে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী ও মেয়ের সংসার ভেঙ্গে যাওয়ার কারণে ১ম স্ত্রী তার বিরুদ্ধে প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেছে।

বৃহস্পতিবার দুপুর ১টায় সীতাকুণ্ড প্রেসক্লাবে সানা উল্ল্যাহ’র ১ম স্ত্রী পারভীন আক্তার সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলেন, তার অনৈতিক কাজের জন্য আমার সন্তানরা এবং আমি প্রতিবাদ করলে আমার স্বামী ৫টি মিথ্যা মামলা দিয়ে আমাদেরকে বিভিন্ন ভাবে হয়রানি করছে। এমনকি সামাজিক ভাবে আমাদেরকে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য হয়রানি করে যাচ্ছে। তার অনৈতিক কাজের জন্য আমার মেয়ের সংসারটা পর্যন্ত ভেঙ্গে যায়।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি আরো বলেন, সে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে পরিচয় দেয় অথচ মুক্তিযুদ্ধা হিসেবে কোন জায়গায় তার নাম নেই। সে বিদেশে আসা যাওয়া করার জন্য বিভিন্ন নামে বেনামে ৩টি পাসপোর্ট ব্যবহার করে। পাসপোর্ট নং-যথাক্রমে বিমল কুমার দেয় ০৪৪৬৫০৭, ছানা উল্ল্যাহ ০৫৩৬৮১৫, আবুল কালাম মোঃ ছানা উল্ল্যাহ ৫৩৬৬৭৪।

পারভীন আক্তার সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ছানা উল্ল্যাহ একজন ভূয়া মুক্তিযোদ্ধা এবং দুষ্ট প্রকৃতির লোক। সে আমাকে এবং আমার ছেলেমেয়েদের নামে একটি বাড়ী লিখে দেয়ার পরও ২য় স্ত্রীর কু-প্রচরোনায় পড়ে আমাদেরকে হয়রানি করে আসছে।

সে গত ৭ মে সীতাকুণ্ড প্রেসক্লাবে সংবাদ সন্মেলন করে বলেন, আমার ছেলেরা তাকে মৃত দেখিয়ে তার সম্পত্তি আত্নসাত করে, এটা সম্পুর্ণ মিথ্যা বানোয়াট, আমি তার প্রথম স্ত্রী হওয়া সত্বেও সে দ্বিতীয় আরেকটি বিয়ে করার পর আমাদেরকে সব কিছু থেকে বঞ্চিত করেছে।

সংবাদ সন্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, প্রথম স্ত্রী পারভীন আক্তার,ছেলেদ্বয় সলিম উল্ল্যা পারভেজ, শওকত উল্ল্যা ফরহাদ, মেয়ে নাসরিন সুলতানা,ভাটিয়ারী ইউনিয়ন ইউনিট কমান্ডার মুক্তিযোদ্ধা মাবুব রহমান ও উপজেলা মহিলা আঃলীগ সিনিয়র সহ-সভাপতি দিলোয়ারা বেগম।

বিএম/কামরুল দুলু/রাজীব..