সুদানে স্বর্ণ চেরাচালানের সময় হেলিকপ্টার আটক: ২১১ কিলোগ্রাম স্বর্ণ উদ্ধার

বিপুল পরিমাণ স্বর্ণ চোরাচালানের সময় বৃহস্পতিবার একটি ব্যক্তিগতহেলিকপ্টার আটক করেছে সুদান এর রেপিড সাপোর্ট ফোর্সেস (আরএসএফ) ।

আরএসএফ এর ফেসবুক পাতায় বলা হয়, দেশটির নীল নদী রাজ্যে আরএসএফ কর্তৃক বিদেশী কোম্পানির মালিকাধীন উড়োজাহাজটি আটক করা হয়।

আরএসএফের মতে, হেলিকপ্টারটি পরবর্তী কয়েক ঘন্টার মধ্যে রাজধানীর খার্তুম আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণের কথা ছিল।

হেলিকপ্টার থেকে স্বর্ণ উদ্ধার করা হচ্ছে

২১১ কিলোগ্রাম স্বর্ণ উদ্ধার হয়েছে উল্লেখ করে আরএসএফের এবজন শীর্ষ কর্মকর্তা জেনারেল ওথমান মোহাম্মদ বলেন, ২১১ কিলোগ্রামের মধ্যে মাত্র ৯৩ কিলোগ্রামের রপতানি ছাড়পত্র আছে। অবশিষ্ট পরিমাণের অবস্থা অস্পষ্ট ছিল।

তিনি বলেন, “আমাদের দায়িত্ব এখন সুদানী কেন্দ্রীয় ব্যাংককে এই বিপুল পরিমাণ স্বর্ণ জমা দেয়া, যাতে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থাগুলি নিতে পারে।”
তিনি সোনা রপ্তানিকারক মরক্কোর কোম্পানিটির নাম প্রকাশ করেননি। কিংবা এটি সুদান কাজ করতে বৈধভাবে নিবন্ধিত ছিল কিনা সে বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানানি।

আরএসএফ সরকার সমর্থিত একটি মিলিশিয়া বাহিনী এবং এর নেতৃত্বে রয়েছে জেনারেল মোহাম্মদ হামদান দাগালো ।

গোল্ড মাইনিং সুদানের বৈদেশিক মুদ্রার মূল উৎসগুলির একটি, যা বছরে প্রায় ১১০ মে. টন স্বর্ণ উৎপাদিত করে। ধারণা উৎপাদিত স্বর্ণের ৭০ ভাগ বিদেশে চোরাচালান করা হয়। কারণ
উৎপাদকরা কালো বাজারের থেকে অনেক কম দামে বলে কেন্দ্রীয় ব্যাংককে স্বর্ণ বিক্রি করার জন্য প্রয়োজনীয় বিধিনিষেধগুলি এড়িয়ে চলার চেষ্টা করে।

সুদানের অন্যতম সমৃদ্ধ রাজ্যে নীল নদীতে স্বর্ণের প্রথাগত এবং আধুনিক খনি রয়েছে এবং এ খান থেকে স্থানীয় ও বিশ্ববাজারে বিপুল পরিমাণের স্বর্ণের যোগান হয়।

বিএম…