ঠাকুরগাঁও জেলাকে মাদকমুক্ত করার উদ্যোগ

ঠাকুরগাঁও জেলার আনাচে-কানাচে হাত বাড়ালেই পাওয়া যায় মাদকদ্রব্য। আর এই মাদকদ্রব্যের দিকে ঝুঁকে পড়েছে জেলার উঠতি বয়সের তরুণ-তরুণীরা। এছাড়াও মাদকের অর্থ সংগ্রহ করার জন্য বিভিন্ন অপরাধে জড়িয়ে পড়ছে তরুণ প্রজন্ম। মাদকের ভয়াল থাবা থেকে তরুণ প্রজন্মকে রক্ষা করতে নেয়া হয়েছে উদ্যোগ।

রবিবার (১২ মে) সকালে জেলা আইন শৃঙ্খলা কমিটির সভায় সিদ্ধান্ত নেয়া হয় ঠাকুরগাঁও জেলাকে মাদকমুক্ত করার। এই সিদ্ধান্তে সকলে একমত হন এবং জেলাকে মাদকমুক্ত করতে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান জানান।

জেলা প্রশাসক ড. কে এম কামরুজ্জামান সেলিমের সভাপতিত্বে আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ঠাকুরগাঁও-১ আসনের সংসদ সদস্য রমেশ চন্দ্র সেন।

জেলা আইন শৃঙ্খলা কমিটির বৈঠক

বক্তব্যে সাংসদ রমেশ চন্দ্র সেন বলেন, একটি পরিবারকে ধ্বংস করে দিতে পারে এই মাদক। একটি জীবনকে ধ্বংস করে দিতে পারে মাদক। এই অবৈধ মাদকদ্রব্য ব্যবসার সঙ্গে যারা জড়িত রয়েছে তাদের আইনের আওতায় আনতে হবে। এই ব্যবসার পেছনে যত বড়ই রাঘব বোয়াল থাকুক না কেন কোনো ছাড় দেয়া হবে না। মাদকের সঙ্গে কোনো আপোষ নেই। কোনো অপরাধী ছাড় পাবে না। ঠাকুরগাঁও জেলাকে মাদকে জিরো টলারেন্সে আনতে হবে। তাহলেই জেলাবাসী সুন্দরভাবে জীবন যাপন করতে পারবে।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন- পুলিশ সুপার মনিরুজ্জামান পিপিএম,অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট শীলাব্রত কর্মকার, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মাহাবুবুর রহমান খোকন, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট অরুনাংশু দত্ত টিটো, উপজেলা আ. লীগের সাধারণ সম্পাদক মোশারুল ইসলাম, ঠাকুরগাঁও প্রেসক্লাবের সভাপতি মনসুর আলী, প্রমুখ।

এছাড়াও সভায় ঠাকুরগাঁও জেলার ৬ থানার ওসি, ৫ উপজেলা চেয়াম্যানসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

ঠাকুরগাঁও জেলাকে মাদকমুক্ত করার জন্য সভায় সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। এছাড়াও জেলার বিভিন্ন সমস্যার কথা তুলে ধরেন বক্তারা এবং দ্রুত সমস্যাগুলো সমাধানের দাবি জানান।

বিএম/গৌতম/রনী