নার্স তানিয়াকে ধর্ষণের পর হত্যার কথা স্বীকার করেছে নুরু

কিশোরগঞ্জে চলন্ত বাসে নার্স শাহীনুর আক্তার তানিয়াকে ধর্ষণের পর হত্যার কথা স্বীকার করেছে মামলার প্রধান আসামি স্বর্ণলতা বাসের ড্রাইভার নূরুজ্জামান নুরু।

শনিবার (১১ মে) রাতে তাকে আদালতে হাজির করলে সে তানিয়াকে ধর্ষণ ও হত্যায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে জবানবন্দি দেয়।

রবিবার (১২ মে) ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি আব্দুল্লাহ আল মামুন চৌধুরী এ তথ্য জানান। আজ দুপুর দেড়টায় কিশোরগঞ্জ পুলিশ অফিসে এ নিয়ে একটি সংবাদ সম্মেলন হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

তানিয়া ঢাকার ইবনে সিনা মেডিকেলে নার্স হিসেবে কর্মরত ছিলেন। পরিবারের সঙ্গে প্রথম রোজা রাখতে সোমবার সন্ধ্যায় ঢাকা থেকে স্বর্ণলতা পরিবহনের একটি বাসে কটিয়াদীর গ্রামের বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা হন তিনি। বাসে ওঠার পর পরিবারের সঙ্গে বেশ কয়েকবার কথাও হয় তার।

স্বজনদের ধারণা, পিরিজপুর এলাকায় আসার আগেই বাসের সব যাত্রী নেমে গেলে চালকসহ কয়েকজন তানিয়াকে ধর্ষণ করে। পরে হত্যা করে তার লাশ ফেলে দেয়।