আঘাতে শিশুর করুন পরিনতি ধারণা চিকিৎসকের
হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে এক বছরের শিশু

চট্টগ্রাম মেইল : চট্টগ্রামের মা ও শিশু হাসপাতালের আইসিইউতে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে এক বছরের শিশু আয়ান। শিশুটির বাবার নাম হাসান তালুকদার। তিনি প্রফেশনাল ফটোগ্রাফার। চট্টগ্রাম পতেঙ্গা কাঠগড় এলাকায় ভাড়া বাসায় বসবাস করে পতেঙ্গা সাগড় পাড়ে আগত পর্যটকদের ছবি তুলেই সংসার চালান।

দুই হাত ও এক পা ভাঙ্গা অবস্থায় গত ১১ মে শিশুটিকে হাসপাতালে ভর্তি করা হলেও এখনো আশংকা কাটেনি তার। কর্তব্যরত চিকিৎসক বলছে তাকে বাঁচানোর আপ্রাণ চেষ্টা চলছে।

এদিকে শিশুটির বাবা এবং সৎ মা দাবী করছে শিশুটি খেলতে খেলতে চেয়ার থেকে পড়ে গেলে সে আহত হয়। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে গত ১১ মে শনিবার মা ও শিশু হাসপাতালে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক আয়ানকে হাসপাতালের আইসিইউতে প্রেরণ করে।

তবে চট্টগ্রামের মা ও শিশু হাসপাতালের দায়িত্বরত চিকিৎসক ডা. নুরুল হক জানিয়েছে শুধুমাত্র চেয়ার থেকে পড়ে গেলে এমন অবস্থা হতে পারেনা। তাকে আঘাত করেই শিশুটির অবস্থা আশংকাজনক হলে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে ধারণা তার। চিকিৎসক নুরুল হক বললেন বর্তমানে শিশুটির অবস্থা খুবই খারাপ। তাকে বাঁচাতে তারা আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

শিশুটির পিতা হাসান তালুকদার জানান, তার ৯ বছরের আরো একটি কণ্যা সন্তান রয়েছে। শিশুটি (আয়ান) জন্মের পর তার মা মারা যাওয়ায় সকলের পিড়াপিড়িতে সে আবার বিয়ে করে। তবে জন্মের পর থেকে শিশুটি মায়ের দুধ না পেয়ে প্রচুর অপুষ্ঠিতে ভুগছিলো।

তিনি বলেন ঘটনাটি স্রেফ দুর্ঘটনা। তার দ্বিতীয় স্ত্রী চাঁদমনি আয়ানকে খুব দেখতে পারে। ভালবাসে। গত ১১মে সে একটু অন্য মনস্ক হলে আয়ান চেয়ার থেকে পড়ে যায়। এতে তার হাত ও পায়ে চরম আঘাত পাই। এরপর হাসপাতালে ভর্তি করায়। এখন কিছুটা ভাল তার শারিরীক অবস্থা। সৎ মায়ের আঘাত করার বিষয়ে চিকিৎসক ধারণা করছে এমন মন্তব্যে সে জানায় গতকাল হাসপাতালে ডাক্তারদের সাথে তার কিছুটা কথা কাটাকাটি হয়েছে। হয়তো এর রেশ ধরেই অনেকেই ঘটনাটি ভিন্নখাতে বলার চেষ্টা করছে।

বিএম/রাজীব..