বিশ্বকাপে যে রেকর্ড শুধুই সাকিবের

নিয়মিত কত রেকর্ডই তো গড়ছেন সাকিব আল হাসান। তবে তার এবারের রেকর্ডটি অনন্য। বিশ্বকাপ ইতিহাসের ১ম ক্রিকেটার হিসেবে ১০০০ রান ও ৩০ উইকেট শিকারির তালিকায় স্থায়ীভাবে প্রথম নামটায় উঠে গেল সাকিব আল হাসানের নাম।

সাউদাম্পটনে টস জিতে আগে ব্যাটিং করে বাংলাদেশ। ইনিংসে ২১তম ওভারে দৌলত জাদরানের শেষ বলে ১ রান নেয়ার মাধ্যমে প্রথম বাংলাদেশি ক্রিকেটার হিসেবে বিশ্বমঞ্চে ১ হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করলেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। এই মাইলফলক স্পর্শ করতে ২৭ ইনিংসে ব্যাট হাতে নামতে হয়েছে সাকিবকে।

এই মাইলফলক স্পর্শ করার কিছুক্ষণ আগেই রশিদ খানের বলে তাকে এলবিডব্লিউয়ের সিদ্ধান্তে আউট দিয়েছিলেন আম্পায়ার। তবে রিভিউ নিয়ে বেঁচে যান সাকিব।

এরপর বোলিংয়ে এসে নিজের প্রথম ওভারেই রহমত শাহকে তুলে নেন সাকিব। দ্বিতীয় স্পেলে ফিরে এসেই নিজের পঞ্চম ওভারে আফগান অধিনায়ক গুলবাদিন নাইবকে আউট করার মাধ্যমে বিশ্বকাপে নিজের ৩০তম উইকেট শিকার করেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। একই ওভারে মোহাম্মদ নবীকেও বোল্ড করেন বাংলাদেশ দলের প্রাণভোমরা।

২০০৭ সালে প্রথম বিশ্বকাপ খেলেছিলেন সাকিব। বিশ্বকাপে নিজের অভিষেক ম্যাচেই ভারতের বিপক্ষে অর্ধশতক তুলে নিয়েছিলেন তিনি। বাংলাদেশও জয় পেয়েছিল ম্যাচটিতে। ২০১৯ সালে টানা চতুর্থ বিশ্বকাপ খেলছেন এই অলরাউন্ডার। বিশ্বকাপের দ্বাদশ আসরের প্রথম ৬ ইনিংসের ৫টিতেই পঞ্চাশের অধিক রান এসেছে তার ব্যাট থেকে। যার মধ্যে ২টি ইনিংস ছিল তিন অঙ্কের।

২০০৭, ২০১১ ও ২০১৫ বিশ্বকাপে ২১ ইনিংসে ব্যাট করে সাকিব সংগ্রহ করেছিলেন ৫৪০ রান। অথচ ২০১৯ বিশ্বকাপের প্রথম ৬ ইনিংসেই এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যানের ব্যাট থেকে আকাশচুম্বী গড়ে এসেছে ৪৭৬ রান।

এই রেকর্ডের খুব কাছে গিয়ে থেমেছেন অজি অলরাউন্ডার স্টিভ ওয়াহ ও লঙ্কান অলরাউন্ডার সনৎ জয়সুরিয়া। ৩টি বিশ্বকাপে ৩৩ ম্যাচে ৯৭৮ রানের সাথে ২৭টি উইকেট শিকার করেছিলেন পেস অলরাউন্ডার ওয়াহ। ৫টি বিশ্বকাপে মোট ৩৮টি ম্যাচ খেলা জয়সুরিয়া ব্যাট হাতে হাজার রান পেরোলেও (১১৬৫ রান) বল হাতে রেকর্ডটি ছুঁতে পারেননি। থেমেছিলেন ২৭ উইকেটে।

বিএম/এমআর