মালিঙ্গার বিদায়ী ম্যাচে বাংলাদেশের বড় পরাজয়

টস জিতে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ৩১৪ রান জড়ো করে শ্রীলঙ্কা। দলের পক্ষে শতক হাঁকান কুশাল পেরেরা। ৯৯ বলে ১১১ রান করেন তিনি। এছাড়া অন্যান্যদের মধ্যে অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস ৪৮, কুশাল মেন্ডিস ৪৩ ও অধিনায়ক দিমুথ করুনারত্নে ৩৬ রান করেন।

বাংলাদেশের পক্ষে তিনটি উইকেট শিকার করেন দীর্ঘদিন পর দলে ফেরা পেসার শফিউল ইসলাম। এছাড়া মুস্তাফিজুর রহমান দুটি এবং মেহেদী হাসান মিরাজ, রুবেল হোসেন ও সৌম্য সরকার একটি করে উইকেট শিকার করেন।

জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে বাংলাদেশ অধিনায়ক তামিম ইকবাল ফেরেন শূন্য রানে। বিদায়ী ম্যাচ খেলতে নামা মালিঙ্গার বলে তামিম উইকেট হারানোর পর খেই হারায় ব্যাটিং লাইনআপ। দলীয় ৩৯ রানের মধ্যে মালিঙ্গাদের বোলিং তোপে সাজঘরে ফেরেন আরও তিন ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ মিঠুন, সৌম্য সরকার ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। তবে বিপর্যয় প্রতিরোধ করেন মুশফিকুর রহিম ও সাব্বির রহমান।

পঞ্চম উইকেটে দুজনে গড়েন ১১১ রানের দারুণ জুটি। এই জুটি থাকাকালীন জয়ের আশাও করছিল বাংলাদেশ। তবে তাদের জুটি ভাঙার পর আবারো ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে টাইগাররা। ৫৬ বলে ৭টি চার হাঁকিয়ে ৬০ রান করে সাজঘরে ফেরেন সাব্বির। তাকে অনুসরণ করেন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ও মেহেদী হাসান মিরাজও।

শেষদিকে যোগ্য সঙ্গীর অভাবে মুশফিকের একাকী লড়াই জয়ের জন্য মোটেও যথেষ্ট হয়ে উঠতে পারেনি। চাপ সামলাতে ব্যর্থ হয়ে মুশফিকও বিদায় নেন, ব্যক্তিগত ৬৭ রানে। তার ৮৬ বল মোকাবেলা করা ইনিংসে ছিল ৫টি চার।

মুশফিকের বিদায়ের পর অলআউট হতে বেশি সময় নেয়নি বাংলাদেশ। মুস্তাফিজুর রহমানের ১৮ রানের ইনিংস পরাজয়ের ব্যবধানই কমিয়েছে শুধু। ৪১.৪ ওভার ব্যাট করে সফরকারীদের ইনিংস থামে ২২৩ রানে, শেষ উইকেটটিও শিকার করেন মালিঙ্গা। এতে শ্রীলঙ্কা পায় ৯১ রানের বড় জয়।

শ্রীলঙ্কার পক্ষে বিদায়ী ম্যাচ খেলা মালিঙ্গা শিকার করেন তিনটি উইকেট। সমান সংখ্যক উইকেট শিকার করেন নুয়ান প্রদীপ। এছাড়া দুটি উইকেট শিকার করেন ধনঞ্জয়া ডি সিলভা।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

টস: শ্রীলঙ্কা

শ্রীলঙ্কা ৩১৪/৮ (৫০ ওভার)
কুশাল পেরেরা ১১১, ম্যাথিউস ৪৭, মেন্ডিস ৪৩, করুনারত্নে ৩৬
শফিউল ৬২/৩, সৌম্য ১৭/১, রুবেল ৫৪/১

বাংলাদেশ ২২৩ (৪১.৪ ওভার)
মুশফিক ৬৭, সাব্বির ৬০, মুস্তাফিজ ১৮, সৌম্য ১৫, মোসাদ্দেক ১২
মালিঙ্গা ৩৮/৩, প্রদীপ ৫১/৩, ধনঞ্জয়া ৪৯/২

ফল: শ্রীলঙ্কা ৯১ রানে জয়ী।

বিএম/এমআর